1. abulkasem745@gmail.com : abulkasem745 :
  2. Amranahmod9852@gmail.com : Amranahmod Amranahmod : Amranahmod Amranahmod
  3. Arafathussain736@gmail.com : Arafathussain736 :
  4. didar.kulaura@gmail.com : didarkulaura :
  5. Press.loskor@gmail.com : Press loskor : Press loskor
  6. Rezwanfaruki@gmail.Com : HolyBd24.com :
  7. Sohelrana9019@gmail.com : M Sohel Rana : M Sohel Rana
  8. syedsumon22@yahoo.com : syed sumon : syed sumon
রবিবার, ২২ নভেম্বর ২০২০, ০১:৩৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কোরবানপুর যুব সমাজের উদ্যোগে দেশের এবং প্রবাসীদের অর্থায়নে অবহেলিত রাস্তার আংশিক মেরামতের কাজ শুরু কেএমপি’র অভিযানে চোলাই মদ ও ফেন্সিডিলসহ আটক ৬ সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তিন বাহিনী প্রধানের সৌজন্য সাক্ষাৎ শান্তিকালীন পদক পেলেন নৌবাহিনীর ৪০ সদস্য মা-বাবাকে মেরে হাসপাতালে পাঠানো সেই মেয়ে গ্রেফতার ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর সেলাই ও মাছ ধরার ছবি ভাইরাল সিরাজগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে আটক সন্দেহভাজন জঙ্গি রাস্তা যেন শত্রুর দ্বারা তৈরী মরন ফাঁদ! দেখার কেউ নেই অথচ চারিদিকে উন্নয়নের মিছিল! সংসদ সদস্য সালাম মুর্শেদীর স্ত্রী ও কণ্যার করোনা পজেটিভ ময়মনসিংহের উত্তর ব্রহ্মপুত্র সাহিত্য পরিষদের সাহিত্য আসর ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ব্যাপক লোক সমাগমের মাধ্যে দিয়ে সিলেটে হেফাজতের সমাবেশ অনুষ্টিত

কালীগঞ্জের অগ্রনী ব্যাংকে ঋন জালিয়াতিতে তুলকালাম

প্রতিবেদকের নাম
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ৬ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৪ বার ভিউ

হলিবিডি প্রতিনিধিঃপ্রবাসী ও মৃত ব্যক্তিসহ অসংখ্য কৃষকের নামে জাল কাগজপত্র তৈরী করে লাখ লাখ টাকার কৃষি ঋণ তুলে আত্বসাৎ করেছে ঝিনাইদহ কালীগঞ্জের অগ্রণী ব্যাংকের ২ কর্মকর্তাসহ এক মাঠসহকারী। সম্প্রতি তদন্তে এ ঘটনা প্রমানিত হওয়ায় ব্যাংকটির সাবেক ব্যবস্থাপক ও ক্রেডিট অফিসার কে সাময়িক বহিস্কার এবং এক মাঠ সহকারীকে চাকুরী থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় তারা ক্ষুব্ধ হয়ে বর্তমান শাখা ব্যবস্থাপককে জীবননাশের হুমকি দেয়ার প্রেক্ষিতে থানায় জিডি করেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শাখা ব্যবস্থাপক নাজমুস সাদাত। কৃষকদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে গরমিল হওয়া টাকার পরিমান এ পর্যন্ত যা পাওয়া গেছে তার পরিমান ৫০ লক্ষাধিক টাকার মত বলে শাখা ব্যবস্থাপক স্বীকার করলেও প্রকৃত পক্ষে কত টাকা আত্বসাৎ করা হয়েছে এবং তা কতজন গ্রাহকের টাকা তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত বলা যাবে না বলে জানিয়েছেন তিনি।

অগ্রণী ব্যাংক কালীগঞ্জ শাখা অফিসসূত্রে জানাগেছে,বর্তমান শাখা ব্যবস্থাপক যোগদানের পর কিছু কৃষি ঋন গ্রহিতারা ঋন নেননি বলে অভিযোগ করেন। এরপর শাখা ব্যবস্থাপক বিষয়টি খতিয়ে দেখে অসংখ্য অসঙ্গতি পেয়ে জোনাল অফিসকে জানান। এরপর শুরু হয় তদন্ত। জোনাল অফিসের তদন্তে আরও কিছু অসঙ্গতি বেরিয়ে আসে। সর্বশেষ পিন্সিপাল অফিস ঢাকার তদন্ত টিমও অসঙ্গতির প্রমাণ পেয়ে আর্থিক অনিয়মের কারণে সাবেক শাখা ব্যবস্থাপক শৈলেন কুমার বিশ^াস, ক্রেডিট অফিসার আব্দুস সালামকে সাময়িক বহিস্কার ও মাঠ সহকারী (অস্থায়ী) আজির আলীকে চাকরি থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে। এদের মধ্যে পূর্বের শাখা ব্যবস্থাপক শৈলেন কুমার বিশ^াস চুয়াডাঙ্গা আঞ্চলিক অফিসে, ক্রেডিট অফিসার আব্দুস সালাম কালীগঞ্জ শাখায় ও মাঠ সহকারী আজির আলী ঝিনাইদহ হামদাহ শাখায় সর্বশেষ কর্মরত ছিলেন।

ব্যাংকসূত্রে আরও জানাগেছে,কৃষি ঋনগুলোতে ব্যাংকের মাঠকর্মি কৃষক যাচাই বাছাই করেন। ঋনের জন্য সুপারিশ করেন ক্রেডিট কর্মকর্তা,সর্বশেষ শাখা ব্যবস্থাপক আরেক তরফা কাগজপত্র দেখে মঞ্জুরী দেন বা ঋনের অনুমোদন দেন। আর গ্রাহক আবেদনসহ স্বাক্ষর করা সকল কাগজপত্র জমা দেন। গ্রাহকের সনাক্তকারী হিসেবে একজন স্বাক্ষর দেন। ব্যাংকসূত্রে আরও জানাগেছে, কয়েক বছর আগে কৃষি ঋন নিয়েছেন অথচ পরিশোধ হয়ে গেছে। তাদের পুরাতন কাগজপত্র বিশেষ পদ্ধতিতে নতুনভাবে তৈরী করে ঋণ পাশ করে আত্বসাৎ করা হয়েছে। এখন গ্রাহকেরা জানতে পারছেন তাদের নামে ব্যাংকে ঋণ আছে। আবার অনেকের ঋন নেয়া আছে। তাদের ফাইলের কাগজপত্রও একইভাবে কাজে লাগিয়ে ঋন বাড়িয়ে উদ্বৃত্ত টাকা আত্বসাৎ করেছে এই অসাধু চক্র। অথচ গ্রাহকেরা এটা জানেনই না। এমন অবস্থার মধ্যে অনেক আগেই মারা গেছেন এমন মৃত মানুষের নামও রয়েছে। অনেক আগে ঋন নিয়ে পরিশোধ করে বিদেশ চলে গেছেন এ চক্রের হাত থেকে এমন প্রবাসীরাও রেহায় পাননি।

যা কালীগঞ্জে এখন মুখোরোচক গল্পে পরিণত হয়েছে।

এ ব্যাংকের খবর ছড়িয়ে পড়লে অনেক আগে কৃষি ঋন নিয়ে পরিশোধ করেছেন এমন সাবেক গ্রহিতারাও চরম দুঃচিন্তায় পড়ে ব্যাংকে তাদের ঋন ফাইল দেখতে ভীড় করছেন। তবে সুযোগ সন্ধ্যানী অনেক ঋন গ্রহীতাও ঋন নিয়েও অস্বীকার করার পায়তারা করছেন বলে ব্যাংক মনে করছেন।

জানাজানির পর মাঠকর্মি আজির আলী তোপের মুখে এলাকার কয়েকজন কৃষকের টাকা গোপনে পরিশোধ করতে বাধ্য হয়েছেন বলে বিশ্বস্তসূত্রে জানাগেছে।

ব্যাংকটির অনিয়মের বিষয়ে খোজ নিয়ে জানা গেছে, প্রায় ৩ বছর আগে মৃত্যুবরণ করেন উপজেলার মনোহরপুর গ্রামের আব্দুল মালেক। তার নামেও কৃষি ঋন তোলা হয়েছে ৪৮ হাজার টাকা। পুকুরিয়া গ্রামের হোসেন আলী মারা যাবার ২ বছর পরও ৪৭ হাজার টাকা ঋন তুলে আত্মসাৎ করা হয়েছে।

মনোহরপুর গ্রামের মৃত আব্দুল মালেকের স্ত্রী রাবেয়া বেগম জানান, বেশ কয়দিন আগে কালীগঞ্জ অগ্রণী ব্যাংক থেকে ৩/৪ জন লোক এসে বললেন তার স্বামী নাকি ৬ মাস আগে ব্যাংক থেকে ৪৮ হাজার টাকা ঋন নিয়েছেন। কিন্ত তার স্বামী তো ৩ বছর আগে মারা গেছেন। মৃত্যুবরনের পরে কিভাবে তিনি ঋণ নিলেন এটা নিয়ে এলাকায় হাসি তামাশার সৃষ্টি হয়েছে।

ছোট সিমলা গ্রামের কৃষক গোলাম রসুল জানান, তিনি এ ব্যাংক থেকে ১৫ হাজার টাকা কৃষি ঋন নিয়ে পরিশোধ করেছেন। নতুন কোন ঋন নেননি। তার বাবা ওলি মালিথার নামে ২০ হাজার টাকার ঋন নেয়া ছিল। ৩ মাস আগে তিনি মারা গেছেন। পরে জানতে পেরেছেন ব্যাংকের মাঠকর্মি আজির আলী কাউকে কিছু না জানিয়ে রিনু করে টাকা বাড়িয়ে আত্বসাৎ করেছেন। পরে আজির আলীকে বলার পর উদ্বৃত্ত টাকা দিয়ে দিতে চেয়েছে। এদিকে সোমবার ব্যাংকে নিজে গেলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ বলেছেন তার নিজের নামে ৪৫ হাজার আর বাবার নামে ৫০ হাজার টাকার ঋন রয়েছে। এমন ঘটনা তার এলাকায় অনেক আছে।

ওই গ্রামের আরেক কৃষক ফুরহাদ আলী জানান, বেশ কিছুদিন আগে একটা কৃষি ঋনের জন্য পরিচিত মুখ ব্যাংকের আজির আলীর কাছে কাগজপত্র জমা দিয়ে প্রায় ৩ মাস ঘুরেছেন। কিন্ত তাকে ঋন দেয়া হয়নি। এখন চারদিকে যে খবর শোনা যাচ্ছে তাতে চিন্তায় আছেন।

বড় সিমলা গ্রামের বয়োবৃদ্ধ খোরশেদ আলী জানান, কালীগঞ্জের অগ্রনী ব্যাংক থেকে তিনি ১৭ হাজার টাকা ঋন নিয়েছিলাম। কিন্ত ব্যাংক কর্তৃপক্ষ বলছেন আমার নামে ৭০ হাজার টাকা ঋন হয়েছে। আমি জানলাম না অথচ আমার নামে নতুন করে লোন হয়ে যাচ্ছে বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক।

আড়পাড়া গ্রামের এক সময়কার ভাড়ায় বসবাসকারী টিপু অধিকারী ও তার স্ত্রীর নামেও অগ্রণী ব্যাংকে ঋন নেওয়ার বিষয় ওই মহল্লার বাসিন্দা প্রতিমা বিশ্বাস জানান, আজ থেকে প্রায় ৫ বছর আগে তারা সপরিবারে ভারতে গিয়ে বসবাস করছেন। আর গত ১ বছর আগে টিপু অধিকারীর স্ত্রী মারা গেছেন। এখন শুনছেন তাদের নামে ব্যাংকে লোন পাশ হয়েছে।

কালীগঞ্জ পৌর এলাকার আড়পাড়া গ্রামের বাসিন্দা কনিকা অধিকারী জানান, বেশ আগে অগ্রণী ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছিলেন। সেই টাকা এখনো শোধ করতে পারেননি। কিন্তু এরই মাঝে ব্যাংক থেকে ফোন করে জানানো হয়েছে নতুন ৫৫ হাজার টাকা ঋণ নেয়া হয়েছে। অথচ তিনি নতুন কোন ঋণ নেননি। তিনি আরও বল

নিউজ টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর

উপদেষ্টা মন্ডলী

কাউন্সিলর এডভোকেট ছালেহ আহমদ সেলিম,
এডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহমদ,
প্রভাষক ডাঃ আক্তার হোসেন,
প্রকাশনা ও সম্পাদক রেজওয়ান আহমদ,
প্রধান সম্পাদক কবি এম এইচ ইসলাম,
বার্তা সম্পাদক এমরান আহমদ,
ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আব্দুল আলী দেওয়ান আব্দুল্লাহ,
সহ ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আমির হোসেন,
সাহিত্য সম্পাদক কবি সোহেল রানা,
বিভাগীয় সম্পাদক আমিনুর ইসলাম দিদার

© All rights reserved © 2020 Holybd24.com
Design & Developed BY Serverneed.com