1. abulkasem745@gmail.com : abulkasem745 :
  2. Amranahmod9852@gmail.com : Amranahmod Amranahmod : Amranahmod Amranahmod
  3. Arafathussain736@gmail.com : Arafathussain736 :
  4. didar.kulaura@gmail.com : didarkulaura :
  5. Press.loskor@gmail.com : Press loskor : Press loskor
  6. Rezwanfaruki@gmail.Com : HolyBd24.com :
  7. Sohelrana9019@gmail.com : M Sohel Rana : M Sohel Rana
  8. syedsumon22@yahoo.com : syed sumon : syed sumon
শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৬:৩২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কোরবানপুর যুব সমাজের উদ্যোগে দেশের এবং প্রবাসীদের অর্থায়নে অবহেলিত রাস্তার আংশিক মেরামতের কাজ শুরু তাহিরপুরে ভুয়া ওয়ারেন্ট তৈরির মামলায় রিয়াজ উদ্দিনসহ ৩ জনের জামিন বাতিল। মানবতার মহান নেতা হযরত মুহাম্মদ সা: এর অবমাননার প্রতিবাদে বলদী যুবসমাজ কল্যাণ সমিতি ফ্রান্সে হজরত মুহাম্মদ (সা.)-কে কটাক্ষ করে ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করা এবং কিছু কথা ফ্রান্সে মহানবী কে নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদে ঘিলাছড়া তৌহিদি জনতার বিক্ষোভ মিছিল ফুডপান্ডার ব্যাপক ভ্যাট ফাঁকি, মামলা দায়ের একুশে টেলিভিশন খুলনার পাইকগাছা থেকে বনদ্যু রোস্তম বাহিনী প্রধান স্ত্রীসহ আটক : অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার ইউনিয়ন রক্ষা নাগরিক কমিটির উদ্যোগে গিলাতলা ইউনিয়নের ৫টি মৌজা সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্ভূক্তি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ৫কিলোমিটার ব্যাপী মহাসড়কে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত জাদুকাটা নদীতে কাজ চাই- না হয় ভাত চাই” তাহিরপুরে জাদুকাটা নদীতে শ্রমিকদের কর্মসংস্থানের দাবিতে মানববন্ধন। দৈনিক সকালবেলা সম্পাদক, বিএসপির মহাসচিব, বাংলাদেশ বেতারের ইংরেজি সংবাদ পাঠক এ্যাডভোকেট সৈয়দ এনামুল হকের দাফন সম্পন্ন ফ্রান্সে মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) কে ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদে ফেঞ্চুগঞ্জে মানববন্ধন

ফিনিক্স পাখি টিউলিপ সিদ্দিক

প্রতিবেদকের নাম
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৪ বার ভিউ

গ্রিক পুরাণ অনুসারে অনলশিখা থেকে পবিত্র ফিনিক্স পাখির সৃষ্টি। এর জীবনচক্র আবর্তিত হয় হাজার বছর ধরে। প্রাণ সংকটাপন্ন হলে এই পাখি নিজের বাসা নিজেই আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। আর নির্মমভাবে দগ্ধীভূত ফিনিক্সের ভস্ম থেকেই আবির্ভাব ঘটে নতুন জীবনের। পূর্বজন্মের ভেতর থেকে নিজেকে নতুনভাবে নির্মাণ করে শুরু হয় জাতিস্মর ফিনিক্সের অবিনাশী যাত্রা। এই ফিনিক্স পাখির মতো অবিনাশী যাত্রা শুরু করেছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্রী এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট বোন শেখ রেহানার কন্যা টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক। তিনি ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের নির্মম হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের মুখে ভস্ম ঢেলে নিজেকে জাগ্রত করেছেন উদ্দীপিত শিখার মতো। আর তাঁর নামটিও সার্থক। ‘টিউলিপ’ শীতপ্রধান দেশের ফুল, যার নীলাভ কিংবা লাল রঙ আগুনের প্রতীক। এদিক থেকে তাঁর নামটি আলোকিত প্রত্যাশার কথা বলে, মানুষের মঙ্গলে নিবেদিত জীবনের গান করে।

আজ ১৬ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশের গর্ব এবং বঙ্গবন্ধু পরিবারের অহঙ্কার টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিকের জন্মদিন। মাত্র ৩৮ বছর বয়সে তিনি বিশ্ববাসীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন কেবল নিজের যোগ্যতা দিয়ে। বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ লেবার পার্টির এই রাজনীতিবিদ তারুণ্যের প্রদীপ্ত শিখা। শেখ রেহানা ও শফিক সিদ্দিকের মেয়ে টিউলিপ সিদ্দিক ১৯৮২ সালে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট থেকেই তাঁর মা শেখ রেহানা নিদারুণ দুর্দশার মধ্যে পড়ে বড় বোন শেখ হাসিনাসহ এক দেশ থেকে অন্য দেশে আশ্রয়ের সন্ধানে ঘুরেছেন। তারপর একাকী তিনি দিল্লি থেকে ১৯৭৬ সালে লন্ডনে পৌঁছান এবং ১৯৭৭ সালে লন্ডনে অবস্থানরত ড. শফিক সিদ্দিককে বিবাহ করেন। সেসময় টিউলিপের রাজনৈতিক আশ্রয়প্রার্থী মায়ের চাকরি খোঁজা, বেঁচে থাকার জন্য সংগ্রাম করা আর অন্যদিকে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার দাবি’র লড়াই মিলেমিশে একাকার ছিল।

জন্মের পর বড় হতে থাকা টিউলিপ পরদেশে আশ্রিত জীবনের বাস্তবতা পর্যবেক্ষণ করেছেন নিবিড়ভাবে। বঙ্গবন্ধুর রক্তধারা তাঁকে আদর্শবাদী রাজনীতি চর্চায় উৎসাহী করেছে। মাতামহ বঙ্গবন্ধু যেমন পাকিস্তান আমলে প্রবল প্রতিকূল অবস্থার মধ্য দিয়ে নিজেকে জনগণের নেতায় পরিণত করেছিলেন; অপরদিকে খালা শেখ হাসিনা যেমন বাংলাদেশে বারবার হত্যার সম্মুখীন হয়েও নিজেকে জননেত্রীতে পরিণত করেছেন; তেমনি আশ্রিত জীবনের দুঃখ-কষ্ট জয় করে টিউলিপ হয়ে উঠেছেন ফিনিক্স পাখি। বঙ্গবন্ধুর খুনিচক্রকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে নিজে গৌরবান্বিত রাজনীতিবিদে পরিণত হয়েছেন; তেমনি বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে মর্যাদার সঙ্গে তুলে ধরেছেন। পিতামাতার সঙ্গে টিউলিপের শৈশব কেটেছে বাংলাদেশ, ভারত ও সিঙ্গাপুরে।

১৫ বছর বয়স থেকে তিনি হ্যাম্পস্টিড ও কিলবার্নে বসবাস করছেন। ওই এলাকায় স্কুলে পড়েছেন ও কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন। লন্ডনের কিংস কলেজ থেকে পলিটিক্স, পলিসি ও গভর্নমেন্ট বিষয়ে তিনি স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। মাত্র ১৬ বছর বয়সে লেবার পার্টির সদস্য হওয়া টিউলিপ অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল গ্রেটার লন্ডন অথরিটি এবং সেইভ দ্য চিলড্রেনের সঙ্গেও কাজ করেছেন। তিনি ২০১৫ সালের ৭ মে অনুষ্ঠিত যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচনে লন্ডনের হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন নির্বাচনী এলাকায় লেবার পার্টির মনোনীত প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হন। ২০১৫ সালে এমপি হওয়ার আগে তিনি রিজেন্ট পার্কের কাউন্সিলর এবং ২০১০ সাল থেকে চার বছর ক্যামডেন কাউন্সিলের কালচার অ্যান্ড কমিউনিটির সদস্য ছিলেন। মূলত ২০১৫ সালে তিনজন বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত নারী বিজয়ী হন তার মধ্যে টিউলিপ ছিলেন ব্যতিক্রমী। তবে ব্রিটিশ এমপি রুশনারা আলী ও রূপা হকও আমাদের অহঙ্কার।

এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর টিউলিপ লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিনের ছায়া মন্ত্রিসভায় নিযুক্ত হন। পরে তিনি পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট বিলের বিরুদ্ধে দৃঢ় অবস্থান গ্রহণপূর্বক লেবার পার্টির ছায়া মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেন। ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত যুক্তরাজ্যের মধ্যবর্তী নির্বাচনে লন্ডনের হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন নির্বাচনী এলাকায় লেবার পার্টির মনোনীত প্রার্থী হিসেবে দ্বিতীয়বারের মতো বিপুল ভোটে বিজয়ী হন। রাজনৈতিক জীবনে তাঁর এই সাফল্যের কারণ পরিশ্রম ও আদর্শবাদী কাঠামোর মধ্যে নিজেকে তৈরি করা। তিনি ২০১৫ সালে পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউজ অব কমন্সে প্রথমবারের মত বক্তব্য রাখেন এবং প্রথম ভাষণেই নজর কাড়েন। ওই ভাষণে শরণার্থী ও আশ্রয়প্রার্থীদের প্রতি ব্রিটেনের সহৃদয়তার ওপর আলোকপাত করেন টিউলিপ সিদ্দিক। বিবিসির তৈরি ব্রিটিশ পার্লামেন্টে সবচেয়ে স্মরণীয় নবনির্বাচিতদের ভাষণের তালিকায়ও স্থান পায় তাঁর ওই ভাষণ। নিজেকে ‘একজন আশ্রয়প্রার্থীর কন্যা’ হিসেবে বর্ণনা করে সে সময় মা শেখ রেহানার দুর্দশার বিবরণ দেন তিনি।

২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসে টিউলিপ যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে সাবেক প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে-এর ব্রেক্সিট চুক্তির বিপক্ষে ভোট দেওয়ার লক্ষ্যে দ্বিতীয় সন্তান জন্মদানের অস্ত্রোপচার পিছিয়ে বিশ্বব্যাপী সংবাদ শিরোনাম হয়েছিলেন। তখন পর্যন্ত যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে সাধারণত কোনও এমপি’র সন্তান জন্ম দেওয়ার সময় আসন্ন হলে বা সদ্যোজাত সন্তানের কারণে বা অসুস্থতার কারণে ভোটে অংশ নিতে না পারলে বিরোধী পক্ষেরও একজন সদস্য ভোটদান থেকে বিরত থাকতেন, যাকে ‘পেয়ার’ বলা হতো। কিন্তু ২০১৮ সালের জুলাইয়ে কনজারভেটিভ পার্টির প্রধান ব্রান্ডন লুইস ওই প্রথা লঙ্ঘন করে ভোট দিয়েছিলেন। অতীতের এই ঘটনার কারণে ওই ব্যবস্থায় তাঁর আর আস্থা নেই জানিয়ে টিউলিপ সশরীরে পার্লামেন্টে গিয়ে ভোট দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তার এই সাহসী সিদ্ধান্তের কারণে সন্তান-প্রত্যাশী ও নবজাতকদের মা-বাবার জন্য ঐতিহাসিক প্রক্সি ভোটিং পদ্ধতি চালু করতে বাধ্য হয় ব্রিটিশ সরকার।

এই বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ মর্মে মূল্যায়ন করেছে ‘ইভিনিং স্ট্যান্ডার্ড’ পত্রিকা। আর এজন্যই লন্ডনের স্বনামধন্য

নিউজ টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর

উপদেষ্টা মন্ডলী

কাউন্সিলর এডভোকেট ছালেহ আহমদ সেলিম,
এডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহমদ,
প্রভাষক ডাঃ আক্তার হোসেন,
প্রকাশনা ও সম্পাদক রেজওয়ান আহমদ,
প্রধান সম্পাদক কবি এম এইচ ইসলাম,
বার্তা সম্পাদক এমরান আহমদ,
ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আব্দুল আলী দেওয়ান আব্দুল্লাহ,
সহ ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আমির হোসেন,
সাহিত্য সম্পাদক কবি সোহেল রানা,
বিভাগীয় সম্পাদক আমিনুর ইসলাম দিদার

© All rights reserved © 2020 Holybd24.com
Design & Developed BY Serverneed.com