1. abulkasem745@gmail.com : abulkasem745 :
  2. Amranahmod9852@gmail.com : Amranahmod Amranahmod : Amranahmod Amranahmod
  3. Arafathussain736@gmail.com : Arafathussain736 :
  4. didar.kulaura@gmail.com : didarkulaura :
  5. Press.loskor@gmail.com : Press loskor : Press loskor
  6. Rezwanfaruki@gmail.Com : HolyBd24.com :
  7. Sohelrana9019@gmail.com : M Sohel Rana : M Sohel Rana
  8. syedsumon22@yahoo.com : syed sumon : syed sumon
বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ০৭:০৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কোরবানপুর যুব সমাজের উদ্যোগে দেশের এবং প্রবাসীদের অর্থায়নে অবহেলিত রাস্তার আংশিক মেরামতের কাজ শুরু সিলেটে ভিলেজ ডাক্তার কমিউনিটি (ভিডিসি)’র মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত মেহেরপুরের কালাচাঁদপুর জিয়ালা বিলের পানি খালকেটে অবমুক্ত করে দিলো- পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন রায়হান হত্যা মামলার আসামী কনস্টেবল টিটু গ্রেফতার, পাচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর  ইলিশ ধরায় ৩৯ জেলের জেল-জরিমানা জনগণের ভাষা বুঝতে না পারাই বিএনপির ব্যর্থতা : কাদের ফেঞ্চুগঞ্জে আইমিত্র অপটিশিয়ান এর উদ্যোগে ফ্রী চক্ষু চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়েছে  দূর্গাপূজায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ডিআইজি’র নির্দেশ খুলনা শেখ রাসেল টেনিস কমপ্লেক্সের উদ্যোগে শেখ রাসেলকে স্মরণ দেড় কোটি টাকার রাস্তা ৫ মাসেই শেষ! রাসেল হত্যার মত নৃশংসতা যেন আর না ঘটে সে লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার -প্রধানমন্ত্রী

ঝিনাইদহে তৈরি হচ্ছে পাটের জুতা রপ্তানি হচ্ছে ইউরোপ আমেরিকা

প্রতিবেদকের নাম
  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৩ বার ভিউ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি –

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে তৈরি হচ্ছে পরিবেশ বান্ধব পাটের জুতা। এসব জুতা রপ্তানী হচ্ছে ইউরোপ আমেরিকাসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। এসব জুতা তৈরির কাজ করছেন স্থানীয় প্রায় ৪০০ নারী। ফলে অর্থনৈতিকভাবে স্বচ্ছল হচ্ছে এসব নারীদের পরিবার। দেশের ঐতিহ্য এ পাট দিয়ে জুতা তৈরি করছে এ্যামাস ফুটওয়ার লিমিডেট নামের একটি প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওবাইদুল হক রাসেল নামের এক যুবক। তার বাড়ি ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ পৌর শহরের দক্ষিণ আড়পাড়ায়। প্রতিষ্ঠানটি অবস্থান ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়কের কালীগঞ্জ উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামে।
দেশে যখন সরকারি ভাবে বিভিন্ন পাটের কারখানাগুলো বন্ধ করা হচ্ছে। লোকসানের মুখে পড়া দেশীয় এ সম্পদ ধরে রাখতে দেশের মফস্বল অঞ্চলের এই গ্রামে পাট দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে পায়ে ব্যবহৃত জুতা। এখানে তৈরি জুতা ফ্রান্স, প্যারিস, জার্মানী, ইতালি, স্পেনসহ চীন জাপানে রফতানি করা হচ্ছে। খুব অল্প সময়ে হাতে তৈরি এই জুতার ইউরোপ ও আমেরিকার বিভিন্ন দেশে ব্যাপক চাহিদা সৃষ্টি হয়েছে।
আর এই জুতা তৈরির কাজ করছে এলাকার প্রায় ৪শ জন নারী। এসব নারীর অধিকাংশই গৃহিনী। বাড়ির কাজের পাশপাশি তারা হাতে পাটের জুতা তৈরির কাজ করছেন। ফলে পুরুষের পাশাপাশি নারীরা আয় করায় সংসারের স্বচ্ছলতা ফিরেছে এসব পরিবারে।
এ্যামাস ফুটওয়ার লিমিডেটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওবাইদুল হক রাসেল জানান, পড়াশোনা শেষ করে তিনি নিজে কিছু করতে চেয়েছিলেন। ঢাকায় প্রথম গার্মেন্টস ব্যবসা শুরু করেন। এরপর ২০১৬ সালের দিকে এলাকার মানুষের জন্য কিছু করার আগ্রহ নিয়ে এবং দেশের পাট শিল্পকে বিশ্বের তুলে ধরার জন্য আগ্রহ দেখান। এরপর কালীগঞ্জ উপজেলার যশোর-ঝিনাইদহ মহাসড়কের রঘুনাথপুর বাজারের পাশে ৪৪ শতক জমি কিনে পাটের জুতা তৈরির কারখানা তৈরি করেন। দেশ এবং বিদেশ থেকে কিছু মেশিন সংগ্রহ করে কাজ শুরু করেন। এরপর বিভিন্ন পাটের কারখানা থেকে কাচা মাল ক্রয় করে এনে এখানে পাটের জুতা তৈরি শুরু করেন। তার উৎপাদিত পাটের জুতা ইউরোপ আমেরিকাসহ চীন এবং জাপানে রপ্তানি করা হচ্ছে। ২০১৭ সাল থেকে এখানকার উৎপাদিত পাটের জুতা দেশের বাইরে রপ্তানি করা হচ্ছে।
তার কারখানায় ৮০ জন নিজস্ব কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছে। এছাড়াও এলাকার প্রায় ৪শ নারী এখান থেকে কাজ নিয়ে গিয়ে বাড়িতে বসে কাজ করে। তাদের ফ্রি প্রশিক্ষণ দিয়ে কাজ দ্ওেয়া হয়। প্রতি জোড়া জুতায় জন্য তারা বিল পেয়ে থাকেন। একে জন নারী বাড়ির অন্য কাজের পাশাপাশি হাতে এই জুতা তৈরি করে মাসে ৪ থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করেন। এখানকার তৈরি জুতা ২ থেকে ১৫ ডলার পর্যন্ত রেটে জুতা বিক্রি করেন। ইতিমধ্যে আমার কারখানায় উৎপাদিত পাটের জুতা দিয়ে প্যারিসে কয়েকটি ফ্যাশন শো হয়েছে।
তিনি বলেন, নিজেই এই জুতার মার্কেটিং করেন। নিজেই বায়ারদের সাথে কথা বলেন এবং রফতানি করেন। পাটের জুতার ব্যাপক চাহিদা রয়েছে উন্নত বিশ্বে যোগ করেন এই তরুণ উদ্যোক্তা।
এ্যামাস ফুটওয়ার লিমিটেডের ম্যানেজার মাসুদ রানা জানান, এই কারখানায় ৬টি ধাপে একটি জুতা তৈরি করা হয়। সোল্ড তৈরি হয় রাবার দিয়ে। জুতার বাকি অংশ তৈরি হয় পাট দিয়ে। আর এই কাজ গুলো সম্পুর্ণ হাতের মাধ্যমে করা হয়। প্রতিমাসে তাদের কারখানা থেকে ৩০ থেকে ৪০ হাজার জুতা রফতানি করা হচ্ছে। এই জুতার বৈশিষ্ট হলো ব্যাবহারের পরে ফেলে রাখলে এটি মাটির সাথে মিশে যায়। ফলে এটি সম্পুর্ন পরিবেশবান্ধব।

নিউজ টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর

উপদেষ্টা মন্ডলী

কাউন্সিলর এডভোকেট ছালেহ আহমদ সেলিম,
এডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহমদ,
প্রভাষক ডাঃ আক্তার হোসেন,
প্রকাশনা ও সম্পাদক রেজওয়ান আহমদ,
প্রধান সম্পাদক কবি এম এইচ ইসলাম,
বার্তা সম্পাদক এমরান আহমদ,
ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আব্দুল আলী দেওয়ান আব্দুল্লাহ,
সহ ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আমির হোসেন,
সাহিত্য সম্পাদক কবি সোহেল রানা,
বিভাগীয় সম্পাদক আমিনুর ইসলাম দিদার

© All rights reserved © 2020 Holybd24.com
Design & Developed BY Serverneed.com