1. abulkasem745@gmail.com : abulkasem745 :
  2. Amranahmod9852@gmail.com : Amranahmod Amranahmod : Amranahmod Amranahmod
  3. Arafathussain736@gmail.com : Arafathussain736 :
  4. didar.kulaura@gmail.com : didarkulaura :
  5. Press.loskor@gmail.com : Press loskor : Press loskor
  6. Rezwanfaruki@gmail.Com : HolyBd24.com :
  7. Sohelrana9019@gmail.com : M Sohel Rana : M Sohel Rana
  8. syedsumon22@yahoo.com : syed sumon : syed sumon
শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০৫:৪৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কোরবানপুর যুব সমাজের উদ্যোগে দেশের এবং প্রবাসীদের অর্থায়নে অবহেলিত রাস্তার আংশিক মেরামতের কাজ শুরু মেহেরপুর শহরে দূর্বৃত্তদের হাতে সমাজসেবা অফিসের কর্মকর্তা খুন ইসির মামলায় নিক্সন চৌধুরীর জামিন বহাল রাখল আপিল বিভাগ ১ অপহরণকারীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬ বৃদ্ধ ও বৃদ্ধার বিয়েতে গ্রামজুড়ে চলছে আনন্দ উৎসব ফেঞ্চুগঞ্জে চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ । সমুদ্র অর্থনীতিকে কাজে লাগাতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী যেভাবে প্রাণে বেঁচে যায় শিশু মারিয়া সন্ধ্যা নদী থেকে ভাসমান অবস্থায় নারী বিসিএস ক্যাডার উদ্ধার জাল ভিসা প্রতারকচক্রের মূলহোতা সিদ্দিকুর গ্রেফতার শালিস বৈঠকে তাহিরপুর সীমান্তে বিজিবি ও এলাকাবাসী সংঘর্ষের ঘটনার শান্তিপূর্ণ সমাধান

রূপসা ঘাটে মাঝিদের দৌরাত্মে অসহায় যাত্রীরা, মানছে না প্রশাসনের নির্দেশনা!

প্রতিবেদকের নাম
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ২১ আগস্ট, ২০২০
  • ২৮ বার ভিউ

উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনা উপেক্ষা করে বহাল তবিয়তে চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে ট্রলার মাঝিদের কর্মকান্ড। করোনা পরিস্থিতির আগে ট্রলারে জনপ্রতি পারানি আদায় করা হতো তিন টাকা। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে স্বল্প সংখ্যক যাত্রী নিয়ে ট্রলার পারাপারে কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী জনপ্রতি পাঁচ টাকা করে পারানি নেওয়া শুরু হয়। কিন্তু সম্প্রতি সময়ে করোনা পরিস্থিতি অনেকটা স্বাভাবিক অবস্থায় নেমে আসলেও জনপ্রতি পারানি নেয়া হচ্ছে পাঁচ টাকা। বাইসাইকেল প্রতি দুই টাকা আদায় করলেও করোনার কারণে আদায় করা হচ্ছে পাঁচ টাকা। প্রতিদিন বাইসাইকেল নিয়ে পারাপার হতে গুনতে হচ্ছে ২০ টাকা। এটা যেন মরার উপর খাঁড়ার ঘা, এমন মন্তব্য পারাপাররত যাত্রীদের।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ আগস্ট রূপসা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা, সমন্বয় কমিটির সভা ও জাতীয় শোক দিবস পালনের লক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভায় খুলনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মূর্শেদী জুম কনফারেন্সে প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত ছিলেন। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনদুর্ভোগের বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য তুলে ধরেন তিনি। এমপি তার বক্তব্যে পূর্ব ও পশ্চিম রূপসা ঘাটে ট্রলারে যাত্রী পারাপারের বিষয়টি তুলে ধরেন। যাত্রীরা যাতে কোনো প্রকার ভোগান্তির শিকার না হয় এ ব্যাপারে কথা বলেন স্থানীয় এ সংসদ সদস্য।

এদিকে ওইসভায় রূপসা ঘাটে ট্রলার মাঝিদের অনিয়মের বিষয়ে বক্তব্য তুলে ধরেন মাদ্রাসা অধ্যক্ষ মাওলানা শফিউদ্দিন নেছারী। ট্রলারে পারাপার হওয়া যাত্রীরা অভিযোগ করে বলেন, রূপসা ঘাটে ট্রলার মাঝিদের দৌরাত্ম বৃদ্ধি পেয়েছে। করোনাকালীন সময়ে প্রতি ট্রলারে স্বল্প সংখ্যক যাত্রী নিয়ে পাঁচ টাকা করে পারানি আদায় কথা থাকলেও নেওয়া হচ্ছে অতিরিক্ত যাত্রী। সাধারণ মানুষ ট্রলার মাঝিদের হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে। ট্রলার ঘাটে যাত্রী ওঠা-নামায় নেই কোনো নিয়ম। সন্ধ্যার পর প্রতিটি ট্রলারে বাতি জ¦ালানোর নিয়ম থাকলেও অধিকাংশে তাও নেই। একজন মানুষকে প্রতিদিন বাইসাইকেল নিয়ে খেয়া পারাপার হতে ট্রলারে পারানি গুনতে হচ্ছে ২০ টাকা।

জানা গেছে, পূর্ব ও পশ্চিম রূপসা ঘাট ইঞ্জিন চালিত মাঝি সংঘের আওতায় ছোট-বড় ১৪০ খানা ট্রলার রয়েছে। এর মধ্যে প্রতিদিন অর্ধেক ট্রলার অমিট রাখা হয়। বাকি ট্রলারগুলোতে যাত্রী পারাপার করা হয়। একাধিক ট্রলার মাঝিদের অভিযোগ পূর্ব ও পশ্চিম রূপসা ঘাট ইঞ্জিন চালিত মাঝি সংঘের সাধারণ সম্পাদক হারেজ হাওলাদারের অত্যাচারে সাধারণ মাঝিরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। তাদের অভিযোগ, সাধারণ সম্পাদক হারেজ হাওলাদার তার ইচ্ছামত ট্রলার ঘাট নিয়ন্ত্রণ করে আসছেন।

যাত্রীদের অভিযোগ, রূপসা ঘাটে ট্রলারে যাত্রী ওঠা-নামায় কোনো নিয়ম মানা হচ্ছে না। যাত্রীরা তিন টাকার ভাড়া পাঁচ টাকা করে দিলেও নেওয়া হচ্ছে অতিরিক্ত যাত্রী। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য যাত্রী সংখ্যা কমিয়ে পারানি বৃদ্ধি করা হয়েছে। অথচ উপজেলা প্রশাসনের কোনো নিয়ম-নীতি মানছে না মাঝিরা। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হারেজ হাওলাদারের এ ব্যাপারে কোনো তদারকি নেই বলেও অভিযোগ একাধিক যাত্রীর।

বাগমারা দক্ষিণপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক সেখ লুৎফর রহমান বলেন, ‘রূপসা ঘাটে ট্রলার মাঝিদের দৌরাত্ম দিন দিন বেড়ে চলেছে। কোনো নির্দেশনা মাঝিরা মানে না। করোনাকালীণ সময়ে সীমিত যাত্রী নিয়ে জনপ্রতি পারানি পাঁচ টাকা করে আদায় করা শুরু হয়। কিন্তু মাঝিরা সীমিত সংখ্যক যাত্রী না নিয়ে তাদের ইচ্ছামত যাত্রী পারাপার করে।

তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতি অনেকটা স্বাভাবিক অবস্থায়। এখন পারানি তিন করে নেওয়া উচিৎ। উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশমতে ট্রলারপ্রতি পনের জন যাত্রী নিয়ে পারানির পাশাপাশি পাঁচ টাকা করে নেয়ার কথা থাকলেও তা মানা হচ্ছেনা। ইচ্ছামত যাত্রী নিচ্ছে মাঝিরা।’ একই কথা বলেন রূপসা ঘাট দিয়ে পারাপারতর যাত্রী শ্রীরামপুর গ্রামের বাসিন্দা ভ্যান চালক মোঃ হানিফ সরদার।

আমদাবাদ এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী মোঃ মোতালেব শেখ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, রূপসা ঘাটে ট্রলার মাঝিরা যাত্রীদের সাথে জুলুম করে। বাইসাইকেল বাবদ আগে দুই টাকা করে নিলেও করোনাকালীন সময় থেকে পাঁচ টাকা করে নেওয়া শুরু হয়েছে। যা খুবই দুঃখজনক। পারানি যাতে তিন করে আদায় করা হয় এ ব্যাপারে তিনি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

মহানগরীর দিলখোলা রোডস্থ এলাকার বাসিন্দা রূপসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক মোঃ আক্তারুজ্জামান বলেন, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক অবস্থায় আসছে। আস্তে আস্তে বিভিন্ন অফিস আদালত খুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে রূপসা ঘাটের পরিস্থিতি ভিন্ন। বাইসাইকেল পার করতে করোনার আগে দিতে হতো দুই টাকা। আর করোনাকালীন সময়ে দিতে হয় পাঁচ টাকা।’

পূর্ব ও পশ্চিম রূপসা ঘাট ইঞ্জিন চালিত মাঝি সংঘের সাধারণ সম্পাদক হারেজ হাওলাদারের সাথে কথা বললে তিনি তার অনিয়মের ব্যাপারে সদুত্তোর দিতে পারেননি। তিনি বলেন, উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশ অনুযায়ী ছোট ট্রলারে ১৩ এবং বড় ট্রলারে ১৬ জন করে যাত্রী নেওয়া হচ্ছে।

রূপসা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাসরিন আক্তার বলেন, ‘জেলা প্রশাসনের নির্দেশ অনুযায়ী মাঝিদের ট্রলারপ্রতি পনের জন করে যাত্রী উঠানো এবং জনপ্রতি পারানি পাঁচ টাকা করে নিতে বলা হয়েছে। তিনি বলেন, কোনো ট্রলারে যদি যাত্রী বেশি নেওয়া হয়, অভিযোগ পেলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

রূপসা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোল্লা জাকির হোসেন বলেন, ‘করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ি প্রত্যেক ট্রলারে পনের জন করে যাত্রী পার করতে হবে। প্রত্যেক যাত্রীর কাছ থেকে পাঁচ টাকা করে পারানি আদায় করতে হবে। তিনি বলেন, যদি কোনো মাঝি আইন অমান্য করে থাকে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’ সূত্র : সময়ের খবর

নিউজ টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর

উপদেষ্টা মন্ডলী

কাউন্সিলর এডভোকেট ছালেহ আহমদ সেলিম,
এডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহমদ,
প্রভাষক ডাঃ আক্তার হোসেন,
প্রকাশনা ও সম্পাদক রেজওয়ান আহমদ,
প্রধান সম্পাদক কবি এম এইচ ইসলাম,
বার্তা সম্পাদক এমরান আহমদ,
ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আব্দুল আলী দেওয়ান আব্দুল্লাহ,
সহ ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আমির হোসেন,
সাহিত্য সম্পাদক কবি সোহেল রানা,
বিভাগীয় সম্পাদক আমিনুর ইসলাম দিদার

© All rights reserved © 2020 Holybd24.com
Design & Developed BY Serverneed.com