1. abulkasem745@gmail.com : abulkasem745 :
  2. Amranahmod9852@gmail.com : Amranahmod Amranahmod : Amranahmod Amranahmod
  3. Arafathussain736@gmail.com : Arafathussain736 :
  4. didar.kulaura@gmail.com : didarkulaura :
  5. dorothy.carrington43@bevilaqua.funny3delements.com : dorothycarringto :
  6. kristanorfleet5225@ssl.tls.cloudns.asia : jamisondeboer46 :
  7. aau.researcher@aau.edu.jo : kerittn759704438 :
  8. terrellsasser@1secmail.org : lesliellewelyn :
  9. claudegigli1988@rubelforex.ru : marcparnell :
  10. Press.loskor@gmail.com : Press loskor : Press loskor
  11. Rezwanfaruki@gmail.Com : HolyBd24.com :
  12. korolyovv8qlmikhail179@mail.ru : sheliawilliams4 :
  13. Sohelrana9019@gmail.com : M Sohel Rana : M Sohel Rana
  14. syedsumon22@yahoo.com : syed sumon : syed sumon
বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ০৪:১২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কোরবানপুর যুব সমাজের উদ্যোগে দেশের এবং প্রবাসীদের অর্থায়নে অবহেলিত রাস্তার আংশিক মেরামতের কাজ শুরু সিলেট উপশহর কাউন্সিলর সেলিম দুর্গন্ধ দূর করতে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম ছিটানো হচ্ছে ব্লিচিং পাউডার মেহেরপুরে চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের দশ বছর পদার্পণ ও প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত বিজেএমসি’র ভাড়াভিত্তিক মিলের উৎপাদিত পণ্য রপ্তানী শুরুর মাধ্যমে পাটখাত আবার পুনরুজ্জীবিত হয়েছে – গোলাম দস্তগীর গাজী,বীরপ্রতীক কালুরঘাটে পদ্মাসেতুর আদলে দ্বিতল সেতু হচ্ছে দাতা সংস্থা দফায় দফায় বৈঠক আমাদের আগামীর ঐতিহ্যবাহী পুরাতন খুলনা হতে চলেছে স্বপ্নের খুলনা শার্শায় ভারতীয় রুপা ও মোটরসাইকেলসহ কারবারি আটক ইভিএমে এখনও আস্থা আসেনি: সিইসি খুলনায় চ্যানেল টোয়েন্টি ফোরের ১০ বছর পূর্তি উদযাপন মেহেরপুরের মুজিবনগরে গাড়ি দুর্ঘটনায় স্কুল শিক্ষার্থী আহত-৪ মেহেরপুরের গাংনীতে ডাচ্ বাংলা ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং এর শুভ উদ্বোধন

শিশু-কিশোরদের হাতে হাতে পৌঁছাক ‘মুজিব গ্রাফিক নভেল

প্রতিবেদকের নাম
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ২২ জুলাই, ২০২০
  • ৬৪ বার ভিউ

চলতি বছর অর্থাৎ ২০২০ সালে প্রথম শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত চার কোটি ২৭ লাখ ছাত্রছাত্রী বাংলাদেশ সরকারের কাছ থেকে বিনামূল্যে পাঠ্যবই পেয়েছে। ২০০৯ সালের জানুয়ারিতে দ্বিতীয় দফায় প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরের বছর (২০১০ সাল) থেকে প্রতিটি ছাত্রছাত্রীকে শিক্ষা বছরের প্রথম দিনে পাঠ্যসূচির প্রতিটি বই বিনামূল্যে প্রদানের যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত নেন। বাংলাদেশে অনেক সরকারি সিদ্ধান্ত সময়মতো বাস্তবায়ন হয় না, এমন অভিযোগ রয়েছে। কিন্তু পাঠ্যবই বিনামূল্যে বিতরণের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হয়েছে যথাযথ ও সুচারুভাবে এবং পরের এক দশকেও ব্যত্যয় ঘটেনি। প্রতি বছর পয়লা জানুয়ারি পাঠ্যবই বিতরণ রীতিমতো উৎসবে পরিণত হয়েছে। তথ্য-পরিসংখ্যান বলছে, হতদরিদ্র পরিবারের সন্তানেরাও এখন বিদ্যালয়ে যেতে পারে। তারা বছরের প্রথম দিন ঝকঝকে নতুন বই হাতে হাসিমুখে বাড়ি ফেরে।

বাংলাদেশে শিক্ষার বিস্তার ঘটেছে, সেটা নিয়ে দ্বিমত নেই। চলতি বছরে ২০ লাখ ৪০ হাজার ছাত্রছাত্রী মাধ্যমিক বা এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। এদের মধ্যে পাস করেছে প্রায় ১৭ লাখ। বিশ্বের অনেক দেশে যে এত লোকই নেই!

পাঠ্যসূচিতে বাংলা, ইংরেজি, অংক- এসব বাধ্যতামূলক বিষয় থাকে। এর বাইরেও অনেক বিষয় অন্তর্ভুক্ত থাকে। সমসাময়িক বিশ্বে পরিবেশের ওপর গুরুত্ব বাড়ছে। এছাড়াও বিজ্ঞানের বিষয় থাকে। শিশু-কিশোরদের ইতিহাস জানাতে হয়, ভূগোলের সঙ্গে পরিচয় ঘটে। ধর্মীয় গ্রন্থ ও আচার-অনুষ্ঠান ও ধর্মনেতাদের জীবনও পড়ানো হয়।

পাঠ্যবইয়ের বাইরেও ছাত্রছাত্রীদের বিবিধ বিষয়ে আগ্রহ থাকে। তারা গল্প-উপন্যাস-কবিতা পড়ে। কার্টুন বিশেষভাবে শিশুদের আকৃষ্ট করে। এটা হচ্ছে তাদের কাছে খুব পছন্দের ফরমেট। সচ্ছল অনেক পরিবারে শিশু-কিশোরদের পড়ার টেবিলে দেখি প্রচুর কার্টুন-বই। টেলিভিশনে কার্টুন খুবই জনপ্রিয়। রূপকথার চরিত্র যেমন শিশু-কিশোরদের মনে গেঁথে যায়, তেমনি স্পাইডারম্যানের মতো দুঃসাহসী চরিত্রও তাদের কাছে আইডল হয়ে ওঠে। তারা নিজেদের যেভাবে দেখতে চায়, অন্যদের কাছে তুলে ধরতে চায়- স্পাইডারম্যান বা টিনটিনে তার ছায়া দেখে। চাচা চৌধুরীর মতো উইট কার না পছন্দ!

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে ‘মুজিব গ্রাফিক নভেল’ আমাকে মুগ্ধ করে। তিনি কেবল আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রামের মহানায়ক নন, নানাভাবেই তিনি অনুকরণীয়, অনুসরণীয়। প্রকৃত অর্থেই আদর্শ পুরুষ, প্রাতঃস্মরণীয়। তাকে নিয়ে শত শত বই রচনা হয়েছে। তাঁর বেড়ে ওঠা, এ ভূখণ্ডের বাঙালির নিজস্ব রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার প্রস্তুতি, বার বার কারাজীবন ভোগ এবং অন্যভাবে নির্যাতিত হয়েও ন্যায় ও সত্যের পথে অটল থাকা- এ সব প্রতিটি শিশুর জন্যই আদর্শ জীবনপাঠ। তিনি সুবক্তা ছিলেন। কথায় ছিল জাদু। অনুপ্রাণিত করায় তাঁর জুড়ি ছিল না। ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’ কী অবিনাশী উচ্চারণ! ‘সাত কোটি মানুষকে দাবায়ে রাখতে পারবা না’- তাঁর এ দৃঢ়সংকল্পবদ্ধ ঘোষণা বাঙালির সবচেয়ে সাহসী উচ্চারণ হিসেবে স্বীকৃত। তাঁর আহ্বানে দলে দলে মুক্তিসেনা যার যা আছে তাই নিয়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী ও তাদের এ দেশীয় দোসর আলবদর-রাজাকারদের পর্যুদস্ত করতে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল রণাঙ্গনে।

কেন এ সব উপজীব্য করে এখনও কার্টুন বই, কমিকস কিংবা টিভি সিরিয়াল নির্মিত হয়নি, সে প্রশ্ন অনেকের মতো আমারও। তিনি বেঁচেছিলেন মাত্র ৫৫ বছর। এর মধ্যে ৪৬৮২ দিন বা ১৩ বছরের মতো ছিলেন কারাগারে। তাঁর সক্রিয় রাজনৈতিক জীবন ছিল ২৫ বছরের মতো। এর মধ্যে অর্ধেকের বেশি সময় কেটেছে কারাগারে! তার কারাজীবনের নানা ঘটনার বর্ণনা রয়েছে ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ ও ‘কারাগারের রোজনামচা’ গ্রন্থে। দ্বিতীয় গ্রন্থটির অনেক ঘটনাকেও কিন্তু শিশুদের উপযোগী গ্রাফিকস্-এ তুলে ধরা যায়। যে সময়ে এ গ্রন্থ দুটি রচনা করেছেন (১৯৬৭-৬৮), তখন তার ফাঁসির দণ্ড হওয়ার প্রচণ্ড শঙ্কা। অথচ তিনি ধীরস্থির ও সংকল্পবদ্ধ, অকুতোভয়। বাংলাদেশের মানুষের ওপর তাঁর অগাধ আস্থা- তারা আন্দোলন করে তাকে ও অন্যায়ভাবে আটক রাখা অন্য বন্দিদের মুক্ত করে নেবেই। এমন আইডল শিশু-কিশোরদের কাছ নানা মাধ্যমেই তুলে ধরার আরও উদ্যোগ চাই। নিঃসন্দেহে, নতুন প্রজন্মের কাঙ্ক্ষিত মাধ্যমের ওপরের দিকে থাকবে কার্টুন।

১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আমরা যে প্রতিবাদী আন্দোলন গড়ে তুলেছিলাম তার অন্যতম স্লোগান ছিল- ‘এক মুজিব লোকান্তরে লক্ষ লক্ষ মুজিব ঘরে ঘরে’। কারফিউয়ের বাধা উপেক্ষা করে এক রাতে ঢাকা বিশ্বদ্যিালয়ের দেয়ালে দেয়ালে লেখা হয় ‘জয় বাংলা’ ও ‘জয় বঙ্গবন্ধু’-এর সঙ্গে এ স্লোগান। বাংলাদেশের নবীন প্রজন্মের মধ্য থেকে ঘরে ঘরে যেন মুজিব গড়ে ওঠে সে জন্য চাই এ মহান নেতার জীবন ও কর্ম যথাযথভাবে তুলে ধরা। বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ গ্রন্থের কিছু অংশ নিয়ে ‘মুজিব গ্রাফিক নভেল’ প্রকাশকে আমরা এ ক্ষেত্রে একটি চমৎকার সূচনা ধরে নিতে পারি। এর আয়োজকদের প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা। শিশু-কিশোরদের উপযোগী করে এটা প্রস্তুত করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর জীবনের কত দিক সম্পর্কেই না শিশুদের শিক্ষা গ্রহণের রয়েছে। আবার উপদেশ বাণী হিসেবেও অনেক কিছু গ্রহণ করা যায়। তিনি শীতের সময় একজন দরিদ্র মানুষকে নিজের গায়ের চাদর খুলে দিয়েছেন কিংবা ঘরের গোলার চাল বাবা-মাকে না জানিয়ে বিলিয়ে দিয়েছেন- এমন মহৎপ্রাণ হিসেবেই আমাদের শিশুরা গড়ে উঠক, এটাই তো কাম্য। আত্মজীবনীতে বঙ্গবন্ধু লিখেছেন- দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ‘আমি লেখাপড়া ছেড়ে দুর্ভিক্ষপীড়িতদের সেবার ঝাঁপ দিলাম। লঙ্গরখানা থেকে দিনে একবার খাবার দেওয়া হতে থাকল।’

শৈশবে বঙ্গবন্ধুর খেলাধুলার প্রতি আকর্ষণ ছিল প্রবল। পিতা শেখ লুৎফর রহমানের দলের বিরুদ্ধে ফুটবল খেলার আগে তাঁর সাহসী উচ্চারণ- ‘আব্বা, আপনি জানেন ভয় আমরা পাই না’, বাংলাদেশের নতুন প্রজন্মকে এমনভাবেই আমরা গড়ে তুলব। শিশুতোষ গ্রাফিক নভেলে উপদেশমূলক একটি বাক্য র

নিউজ টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর

উপদেষ্টা মন্ডলী

কাউন্সিলর এডভোকেট ছালেহ আহমদ সেলিম,
এডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহমদ,
প্রভাষক ডাঃ আক্তার হোসেন,
প্রকাশনা ও সম্পাদক রেজওয়ান আহমদ,
প্রধান সম্পাদক কবি এম এইচ ইসলাম,
বার্তা সম্পাদক এমরান আহমদ,
ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আব্দুল আলী দেওয়ান আব্দুল্লাহ,
সহ ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আমির হোসেন,
সাহিত্য সম্পাদক কবি সোহেল রানা,
বিভাগীয় সম্পাদক আমিনুর ইসলাম দিদার

© All rights reserved © 2020 Holybd24.com
Design & Developed BY Serverneed.com