1. abulkasem745@gmail.com : abulkasem745 :
  2. Amranahmod9852@gmail.com : Amranahmod Amranahmod : Amranahmod Amranahmod
  3. Arafathussain736@gmail.com : Arafathussain736 :
  4. didar.kulaura@gmail.com : didarkulaura :
  5. dorothy.carrington43@bevilaqua.funny3delements.com : dorothycarringto :
  6. Press.loskor@gmail.com : Press loskor : Press loskor
  7. Rezwanfaruki@gmail.Com : HolyBd24.com :
  8. Sohelrana9019@gmail.com : M Sohel Rana : M Sohel Rana
  9. syedsumon22@yahoo.com : syed sumon : syed sumon
রবিবার, ২২ মে ২০২২, ১১:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কোরবানপুর যুব সমাজের উদ্যোগে দেশের এবং প্রবাসীদের অর্থায়নে অবহেলিত রাস্তার আংশিক মেরামতের কাজ শুরু মেহেরপুরের গাংনীতে ডাচ্ বাংলা ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং এর শুভ উদ্বোধন বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তাদেরও অফিসিয়াল কাজে বিদেশ যাওয়া নিষিদ্ধ তাহিরপুরে ভূমি সেবা সপ্তাহ উদ্ভোধন আট বিভাগেই বৃষ্টির পূর্বাভাস অর্থনীতি সমিতির ২০ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকার বিকল্প বাজেট পেশ সর্বনিম্ন ২৫ হাজার টাকা বেতন চান সরকারি কর্মচারীরা নরসিংদীতে মা ও দুই সন্তানের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র ববির জন্মদিন আজ জুনে পদ্মা সেতুতে দাঁড়িয়ে মানুষ পূর্ণিমার চাঁদ দেখবে : কাদের

এবার শাহাবুদ্দিনে ভয়াবহ করোনা জালিয়াতি, হাসপতাল বন্ধ

প্রতিবেদকের নাম
  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ২১ জুলাই, ২০২০
  • ৭৯ বার ভিউ

রাজধানীর উত্তরায় রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযানে করোনা পরীক্ষা ও চিকিৎসায় ভয়াবহ জালিয়াতির তথ্য উঠে আসার পর এবার একই ধরনের অভিযোগে শাহাবুদ্দিন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব।

রবিবার বিকেলে গুলশান-২-এ অবস্থিত ওই হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত অবৈধ অ্যান্টিবডি পরীক্ষার কিট, অন্য হাসপাতালে করোনা পরীক্ষা করিয়ে নিজেদের প্যাডে দেওয়া রিপোর্ট, পুরনো সার্জিক্যাল সরঞ্জাম এবং অবৈধভাবে ব্যবহৃত ডিভাইস জব্দ করেন। আটক করা হয় হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. মো. আবুল হাসনাত ও হাসপাতালের ইনভেন্টরি অফিসার শাহরিজ কবির সাদিকে।

অভিযান শেষে ভ্রাম্যমাণ আদালত হাসপাতালটির ফার্মেসিতে অননুমোদিত ওষুধ রাখায় দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছেন। করোনা পরীক্ষায় অনিয়ম করায় গতকাল রাতেই হাসপাতাল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। আজ রোগী সরিয়ে হাসপাতালটি সিলগালা করে দেওয়া হবে। নিয়মিত মামলা করার কথাও বলা হয়েছে।

জানা যায়, হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাবেক বিএনপি নেতা মো. শাহাবুদ্দিন। তিনি বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-অর্থবিষয়ক সম্পাদক ও ঢাকা মহানগর উত্তরের সহসভাপতি ছিলেন। পরে গত বছর ১৬ মার্চ অসুস্থতা এবং পারিবারিক কারণ দেখিয়ে দলের সব রকম পদ থেকে সরে যান।

এই অভিযানে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

র‌্যাব কর্মকর্তারা বলছেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সম্প্রতি শাহাবুদ্দিন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনা পরীক্ষার অনুমোদন বাতিল করেছে। কিন্তু তারা অবৈধভাবে অ্যান্টিবডি পরীক্ষা করে আসছিল। এই পরীক্ষার নামে রোগীদের কাছ থেকে তিন থেকে ১০ হাজার টাকা আদায় করা হচ্ছিল। অন্য হাসপাতালে পরীক্ষা করিয়ে নিজেদের প্যাডে রিপোর্ট দেওয়া, অবৈধভাবে সরঞ্জাম ব্যবহার এবং একই মাস্ক-গ্লাভস একাধিকবার ব্যবহারের আলামত পেয়েছেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, দুপুর আড়াইটার দিকে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত গুলশান-২ নম্বরের ১১৩/এ নম্বর সড়কের শাহাবুদ্দিন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে অভিযান শুরু করেন। সন্ধ্যা পর্যন্ত চলা এই অভিযানে করোনা পরীক্ষায় ও চিকিৎসায় ব্যবহৃত সরঞ্জাম, উপকরণ, রিপোর্ট ও নথিপত্র যাচাই করেন আদালত। অভিযানে অসহযোগিতা করায় বিকেল ৫টার দিকে ডা. আবুল হাসনাতকে হেফাজতে নেয় র‌্যাব। এর আগে হাসপাতালের ইনভেন্টরি অফিসার শাহজির কবির সাদিকেও হেফাজতে নেওয়া হয়। হাসপাতালে তল্লাশি চালিয়ে বেশ কিছু র‌্যাপিড কিট ও রিপোর্ট জব্দ করা হয়। ফার্মেসিতেও ওষুধ যাচাই করেন আদালত। সেখান থেকে ১১ বছর আগের সার্জিক্যাল সরঞ্জাম জব্দ করা হয় বলে জানান সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

আদালত পরিচালনাকারী র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম সাংবাদিকদের বলেন, ‘হাসপাতালটি অনুমোদন ছাড়াই র‌্যাপিড কিট দিয়ে কভিড-১৯ রোগীদের অ্যান্টিবডি টেস্টের কাজ করছিল। এ ছাড়া তারা অ্যান্টিবডি পরীক্ষার নামে রোগীদের কাছ থেকে তিন থেকে ১০ হাজার টাকা করে নেয় বলে অভিযোগ পেয়েছি।’ তিনি আরো বলেন, হাসপাতালটির বিরুদ্ধে তাঁরা তিনটি অভিযোগ পেয়েছেন। এর মধ্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর তাদের কভিড-১৯ পরীক্ষার অনুমোদন দিয়েছিল। কিন্তু তাদের স্বয়ংক্রিয় মেশিন না থাকায় এই অনুমোদন বাতিল করা হয়। এর পরও তারা গোপনে পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছিল। তারা বাইরের রোগীদেরও টেস্ট করেছে। এই টেস্টগুলো তারা ডিভাইসের মাধ্যমে করেছে। কিন্তু বাংলাদেশে সেই ডিভাইস ব্যবহারের অনুমোদন নেই। আর যেসব রিপোর্ট দিয়েছে তা সবই ভুয়া। দ্বিতীয় অভিযোগ হলো—হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কিছু পরীক্ষা বাইরের অন্যান্য হাসপাতাল থেকে করে তা নিজেদের প্যাডে লিখে রোগীদের দিয়েছে। তৃতীয় অভিযোগ হলো—তারা কিছু সামগ্রী যেমন মাস্ক, গ্লাভস এগুলো একের অধিকবার ব্যবহার করছে। এগুলো মূলত একবার ব্যবহারযোগ্য। কিন্তু তারা এগুলো বারবার ব্যবহার করছে।

র‌্যাবের সূত্র জানিয়েছে, কভিড-১৯ (করোনাভাইরাস) রোগীদের চিকিৎসায় যুক্ত বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মধ্যে অন্যতম ৫০০ শয্যার শাহাবুদ্দিন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। সম্প্রতি বেশ কিছু অনিয়মের অভিযোগ ওঠে হাসপাতালটির বিরুদ্ধে। রোগীরা অতিরিক্ত বিল আদায়ের অভিযোগ তুলেছে। বিভিন্ন তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল অভিযানে যান র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

গতকাল রাতে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ কালের কণ্ঠকে বলেন, অভিযানে অবৈধভাবে অ্যান্টিবডি টেস্টের রিপোর্ট পাওয়া গেছে। যাচাই-বাছাই শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

প্রসঙ্গত, গত ৬ জুলাই রাজধানীর উত্তরায় রিজেন্ট হাসপাতালে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে করোনা পরীক্ষা ও চিকিৎসায় প্রতারণার ভয়াবহ তথ্য উঠে আসে। এর আগে পুলিশের অভিযানে ধরা পড়ে জেকেজি নামের একটি প্রতিষ্ঠান করোনা পরীক্ষার নামে জালিয়াতির তথ্য। এসব প্রতিষ্ঠানের কর্তাদের গ্রেপ্তার করেছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

নিউজ টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর

উপদেষ্টা মন্ডলী

কাউন্সিলর এডভোকেট ছালেহ আহমদ সেলিম,
এডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহমদ,
প্রভাষক ডাঃ আক্তার হোসেন,
প্রকাশনা ও সম্পাদক রেজওয়ান আহমদ,
প্রধান সম্পাদক কবি এম এইচ ইসলাম,
বার্তা সম্পাদক এমরান আহমদ,
ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আব্দুল আলী দেওয়ান আব্দুল্লাহ,
সহ ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আমির হোসেন,
সাহিত্য সম্পাদক কবি সোহেল রানা,
বিভাগীয় সম্পাদক আমিনুর ইসলাম দিদার

© All rights reserved © 2020 Holybd24.com
Design & Developed BY Serverneed.com