1. [email protected] : abulkasem745 :
  2. [email protected] : Amranahmod Amranahmod : Amranahmod Amranahmod
  3. [email protected] : Arafathussain736 :
  4. [email protected] : didarkulaura :
  5. [email protected] : Press loskor : Press loskor
  6. [email protected] : HolyBd24.com :
  7. [email protected] : M Sohel Rana : M Sohel Rana
  8. [email protected] : syed sumon : syed sumon
রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কোরবানপুর যুব সমাজের উদ্যোগে দেশের এবং প্রবাসীদের অর্থায়নে অবহেলিত রাস্তার আংশিক মেরামতের কাজ শুরু গোলাপগঞ্জের হেতিমগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হিসেবে জাফরান জামিল পুনর্নির্বাচিত। হাটহাজারী মাদ্রাসায় জরুরি বৈঠকে বসছেন হেফাজতের শীর্ষ নেতারা মিয়ানমার সেনা অভ্যুত্থান : ক্র্যাকডাউনে এক দিনে ৮০ জনের বেশি নিহত অসুস্থদের রোজার প্রস্তুতি ভারতের কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে ৪ মুসলিমের মৃত্যু, যা বললেন মমতা এইচআইভি পরীক্ষা ঘরে বসেই ১২-১৩ এপ্রিল দূরপাল্লার বাস চলবে না : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী তালায় বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃত করার অভিযোগে যুবক গ্রেফতার নিষ্ঠাবান সাংবাদিক হিসেবে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন হাসান শাহরিয়ার’ ১৪ এপ্রিল থেকে কঠোর লকডাউন, জরুরি সেবা ছাড়া সব বন্ধ: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

ভারতে ভূমি জরিপের কাজে ড্রোন, গরিবদের বঞ্চিত হওয়ার আশঙ্কা

প্রতিবেদকের নাম
  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২০
  • ২০ বার ভিউ

ভারতের গ্রামাঞ্চলে ভূমি জরিপের কাজে ড্রোন ব্যবহারের পরিকল্পনা করেছে সরকার। এতে জমির মালিকানা ইস্যুতে কোটি কোটি মানুষ উপকৃত হতে পারে। কিন্তু সরকারের এই উদ্যোগ ঐতিহ্যগতভাবে যেসব প্রান্তিক জনগোষ্ঠী সবসময় জমির মালিকানা থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছে তাদেরকে আরো বঞ্চনার দিকে ঠেলে দিতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন মানবাধিকার বিশেষজ্ঞরা।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গত সপ্তাহে স্বামীত্ব যোজনা বা মালিকানা প্রকল্প উদ্বোধন করেন। এর মাধ্যমে এই প্রথমবারের মতো ড্রোন ও প্রযুক্তি ব্যবহার করে বিভিন্ন রাজ্যে গ্রামীণ খানা জরিপের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

পরীক্ষামূলকভাবে ছয়টি রাজ্যে এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে। জমির মালিকানা স্বত্ব ঋণ গ্রহণের কাজে ব্যবহার করা যাবে বলে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন। এতে রাজ্যের আরো রাজস্ব আয় হবে, যা দিয়ে অবকাঠামো নির্মাণ ও সরকারি সুযোগ-সুবিধা বাড়ানো যাবে।

এক ভিডিও বার্তায় মোদি বলেন, গ্রামীণ এলাকায় বেশিরভাগ আবাসিক সম্পত্তির মালিকানার যথাযথ কাগজপত্র নেই। জনগণকে মালিকানা স্বত্ব প্রদানের মাধ্যমে এই অবস্থার পরিবর্তন করা যেতে পারে।

ব্রিটিশ আমলে ভারতে কৃষিভূমির জরিপ হয়। যেখানে বাড়িঘর তৈরি করা হয় বা যাকে গ্রাম বলা হয় সেগুলো আবাদি ভূমি নামে পরিচিত ছিলো। কিন্তু এমন এলাকা আধা বর্গকিলোমিটারের কম হলে তা পতিতজমি হিসেবে বিবেচনা করে তা জরিপের বাইরে রাখা হয়।

ভারতে জনসংখ্যা বেড়ে গিয়ে কৃষি জমির উপর চাপ বৃদ্ধি পাওয়ায়, সড়ক ও বিমান বন্দর নির্মাণের প্রয়োজন হওয়ায় ভূমির মালিকানা নিয়ে বিরোধ বাড়তে থাকে। দেওয়ানি আদালতে মামলার দুই-তৃতীয়াংশ ভূমি ও সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ সম্পর্কিত।

২০০৮ সালে আধুনিক ভূমি রেকর্ড কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। তাতে সব ভূমি নতুন করে জরিপ করা হলেও এ সম্পর্কিত সব তথ্য অনলাইনে প্রকাশ ২০২১ সাল পর্যন্ত স্থগিত রাখা হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে যে এর ফলে ভূমি কেনাবেচার বিষয়টি ভালোভাবে নজরদারি করা যাবে। এতে রাজস্ব আয় বাড়বে এবং দুর্নীতি কমবে।

মহারাষ্ট্র ও উড়িষ্যার মতো কিছু রাজ্য গ্রামীণ এলাকার আবাসিক জমি জরিপ করার উদ্যোগ নিয়েছে।

কিন্তু ভূমি বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে ভূমি রেকর্ড ডিজিটাল করার উদ্যোগ নেয়া হলে নিম্ন বর্ণের যেসব সম্প্রদায় ঐতিহ্যগতভাবে ভূমি থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছে তারা মালিকানার বাইরে পড়ে যেতে পারে। ফলে তারা আরো উচ্ছেদপ্রবণ হয়ে পড়বে।

ভূমি অধিকারকর্মী ও সাবেক সরকারি কর্মকর্তা ড. ইএএস শর্মা বলেন, গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হয় মূলত কর্মকর্তাদের দ্বারা ভূমি রেকর্ড রদবদল হওয়ার কারণে। পাশাপাশি ভূমির হোল্ডিং যথাযথভাবে জরিপ না করার কারণেও এটা হয়ে থাকে।

তিনি বলেন, ডিজিটাইজেশন পরিস্থিতির আরো অবনতি ঘটাবে কারণ এতে ক্ষুদ্র চাষীদের জন্য স্বচ্ছতা কমে যাচ্ছে। ডিজিটাল রেকর্ডে তাদের প্রবেশ সুযোগ সীমিত।

শর্মা বলেন, ভূমি জরিপ করতে হবে স্বচ্ছতার সঙ্গে এবং সব অধিবাসী রেকর্ড পর্যালোচনা করবেন। তা নাহলে বিরোধ দূর হবে না এবং প্রভাবশালীরা প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে শোষণ অব্যাহত রাখবে।

তাছাড়া মালিকানায় যৌথভাবে নারীদেরকেও স্বত্ব দেয়া হবে কিনা সে কথা স্বামীত্ব যোজনায় উল্লেখ নেই।

দিল্লিভিত্তিক সেন্টার ফর পলিসি রিসার্চ-এর ফেলো নমিতা ওয়াহি বলেন, আদিবাসী জনগণ যেভাবে প্রথাগতভিত্তিতে স্বত্ব লাভ করেন সেগুলোর কোন লিখিত রেকর্ড নেই। সেগুলোকে স্বীকৃতি দিতে হবে।

তার মতে দলিত, আদিবাসী ও নারীদের ব্যাপারে প্রোঅ্যাকটিভ উদ্যোগ গ্রহণ করা না হলে তাদের মালিকানা স্বত্বের বাইরে পড়ে যাওয়ার বিপদ তৈরি হবে।

নিউজ টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর

উপদেষ্টা মন্ডলী

কাউন্সিলর এডভোকেট ছালেহ আহমদ সেলিম,
এডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহমদ,
প্রভাষক ডাঃ আক্তার হোসেন,
প্রকাশনা ও সম্পাদক রেজওয়ান আহমদ,
প্রধান সম্পাদক কবি এম এইচ ইসলাম,
বার্তা সম্পাদক এমরান আহমদ,
ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আব্দুল আলী দেওয়ান আব্দুল্লাহ,
সহ ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আমির হোসেন,
সাহিত্য সম্পাদক কবি সোহেল রানা,
বিভাগীয় সম্পাদক আমিনুর ইসলাম দিদার

© All rights reserved © 2020 Holybd24.com
Design & Developed BY Serverneed.com