1. [email protected] : abulkasem745 :
  2. [email protected] : Amranahmod Amranahmod : Amranahmod Amranahmod
  3. [email protected] : Arafathussain736 :
  4. [email protected] : didarkulaura :
  5. [email protected] : Press loskor : Press loskor
  6. [email protected] : HolyBd24.com :
  7. [email protected] : M Sohel Rana : M Sohel Rana
  8. [email protected] : syed sumon : syed sumon
শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০৮:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কোরবানপুর যুব সমাজের উদ্যোগে দেশের এবং প্রবাসীদের অর্থায়নে অবহেলিত রাস্তার আংশিক মেরামতের কাজ শুরু বিশ্ববাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সামাদ মিয়া জাকারিয়া  হিংসা-বিদ্বেষ সহ মনের পশুকে পরাজিত করার বাণী নিয়ে এসেছে ঈদুল আযহা, সাইফুল্লাহ আল হোসাইন ভোগে সুখ নয়, ত্যাগেই প্রকৃত সুখ, ব্যারিস্টার মোস্তাকিম রাজা চৌধুরী আব্দুল আজিজ মাসুক ফাউন্ডেশন এ-র পক্ষ থেকে চিকিৎসার সাহায্যার্থে নগদ অর্থ প্রদান আবার কবে আমার বয়স্ক ভাতা হবে! ঘূর্ণিঝড় “ইয়াস” আগে তোরা মানুষ হ- “মা” প্রতিপক্ষকে ফাঁসাথে গিয়ে, একই দিনের ঘটনায় চিকিৎসার কাগজপত্রে একমাসের পার্থক্য ফেঞ্চুগঞ্জে ছুরিকাঘাতে আহত করে আবারও আহতদের উপরে মিথ্যে মামলা করার অভিযোগ

সব কিছুতে করোনার প্রভাব, তবুও কমছে না কিস্তি’র চাপ!

প্রতিবেদকের নাম
  • আপডেটের সময় : রবিবার, ২২ মার্চ, ২০২০
  • ২৩ বার ভিউ

বিশ্বের সব কিছুতেই পড়েছে করোনার প্রভাব। তবুও কমছে না কিস্তির চাপ। সারাদিনে কোন বেচাকেনা নেই। কি খাব, কি করে বাঁচব এ নিয়েই ভাবি সারক্ষণ।

তারপরও মরার উপর খাড়ার ঘা। ব্যাংক, এনজিও’র ও সুদ কারবারিদের দেনার চাপ।’ রোববার (২২ মার্চ) দুপুরে এমনটাই জানালেন বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলা সদর বাজারের পুস্তক ব্যবসায়ী তাওহিদুর রহমান।

তিনি আরও জানান, ‘সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সবাই যখন সোচ্চার। সরকার যেখানে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছে। সেখানে বহাল তবিয়াতে চলছে ব্যাংক, এনজিও ও সুদে কারবারিদের কিস্তি আদায়।

করোনা ভাইরাসের প্রভাবের পর থেকে চিতলমারীতে নিত্যপ্রয়োজনী পণ্য ছাড়া অন্য সব কিছুর বেচা কেনা এক প্রকার বন্ধ হয়ে গেছে। তারপর থেমে নেই কর্মীদের কিস্তি আদায়। এ উপজেলায় সাতটি ব্যাংক, ২০-২৫ এনজিও এবং ১০০ টির কাছাকাছি সমবায় সমিতি রয়েছে।

বাজারের প্রতিটি ব্যবসায়ী কমপক্ষে ৪-৬টি এনজিও’র ঋণের জালে জড়িত। তাই বর্তমানে কিস্তির চাপে ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষেরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে।’ সরকারের এ ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া উচিত বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

একই বাজারের চায়ের দোকানদার বিশ্ব মন্ডল (৪৫)। পাঁচ সদস্যর পরিবার তার। চা বিক্রির পরই তাদের জীবন ও জীবিকা নির্ভর। করোনা ভাইরাসের প্রভাবে এখন আর তেমন চা বিক্রি হচ্ছে না। কি খেয়ে বাঁচবেন তা নিয়েই তিনি দিশেহারা। তবুও রয়েছে কিস্তির চাপ।

বিশ্ব মন্ডল সাংবাদিকদের বলেন, ‘এনজিও ব্র্যাকে তার লোন নেওয়া ১৫ হাজার, সপ্তাহে কিস্তি ৪৫০ টাকা, গ্রামীণ ব্যাংকের ৩০ হাজারের কিস্তি এক হাজার ৫০০ টাকা, সিএসয়ের ৪০ হাজারের কিস্তি এক হাজার ২০০ টাকা, জাগরণী চক্রের ৩০ হাজারের এক হাজার, কোডেকের ৫০ হাজারে এক হাজার ও এসডিএফয়ের ২০ হাজারে সপ্তাহে ৫০০ টাকা করে কিস্তি দিতে হয়।

গড়ে প্রতিদিন তার কোন না কোন এনজিওর কিস্তির তাড়া থাকে। এ অবস্থায় তিনি কিস্তির চাপে কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়েছেন।’

বাজারের ফল বিক্রেতা ফারুক বিশ্বাস, কাপড় ব্যবসায়ী অমিত সাহা, টিটন সাহা, মুরগি বিক্রেতা মিজান শেখ জানালেন একই কথা।

তাই তারা এই মুহুর্তে দেশের ঋণদানকারী সকল ব্যাংক, এনজিও, সমিতি ও সুদে কারবারিদের কিস্তি ও সুদের টাকা বন্ধের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

এ ব্যপারে কয়েকটি এনজিও ও ব্যাংকের কর্মকর্তাদের কাছে জানতে চাইলে নাম না প্রকাশ করার শর্তে তারা বলেন, ‘এখনও উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কোন নির্দেশনা আসেনি। নির্দেশনা পেলে কিস্তি আদায় বন্ধ করা হবে।’

নিউজ টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর

উপদেষ্টা মন্ডলী

কাউন্সিলর এডভোকেট ছালেহ আহমদ সেলিম,
এডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহমদ,
প্রভাষক ডাঃ আক্তার হোসেন,
প্রকাশনা ও সম্পাদক রেজওয়ান আহমদ,
প্রধান সম্পাদক কবি এম এইচ ইসলাম,
বার্তা সম্পাদক এমরান আহমদ,
ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আব্দুল আলী দেওয়ান আব্দুল্লাহ,
সহ ব্যবস্হাপনা সম্পাদক আমির হোসেন,
সাহিত্য সম্পাদক কবি সোহেল রানা,
বিভাগীয় সম্পাদক আমিনুর ইসলাম দিদার

© All rights reserved © 2020 Holybd24.com
Design & Developed BY Serverneed.com