এই মাত্র পাওয়া খবর
|
সর্বশেষ
ফেঞ্চুগঞ্জে কয়েস নয়, নৌকার পক্ষে প্রচারণা, এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড়         ছকাপন যুব সমাজের উদ্দ্যোগে বিজয় দিবস উদযাপন         সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে রুমন ও সোহেল স্মৃতি স্পোর্টিং ক্লাব এর ফাইনাল খেলা অনুষ্টিত।         বিজয় দিবসে বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরাম সিলেট জেলা শাখার শ্রদ্ধাঞ্জলি         জামেয়া মোহাম্মদীয়া চিলারকান্দি মাদরাসায় বিজয় দিবস উদযাপন         দারুল উলূম সিলেট মাদ্রাসায় মহান বিজয় দিবস পালন         সিলেট ৩ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী শফি চৌধুরীর গণসংযোগ।         নারীদের অবদানে রাজশাহী আরও এগিয়ে যাবে : মেয়র লিটন         ২৪ থেকে ২৬ ডিসেম্বরের মধ্যে সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন         বাংলাদেশ জিজ্ঞাসা || কে পাচ্ছেন কোটি টাকা?         ড. কামালের ওপর হামলা ফৌজদারি অপরাধ, গ্রেফতারের ক্ষমতা আছে সেনাবাহিনীর-কে এম নূরুল হুদা         ভোট চাইলেন চরমোনাই পীর         আ.লীগের ইশতেহার ঘোষণা ১৮ তারিখ         ওয়ানডেতে সাফল্য : বিশ্বে তৃতীয় বাংলাদেশ         ব্যারিস্টার মাহাবুব উদ্দিন খোকন গুলিবিদ্ধ, থমথমে নোয়াখালী        

মুক্তমত

‘রাজাকারের’ মূল্য কি একজন পুরস্কারপ্রাপ্ত শিল্পীর চেয়ে বেশি: চিত্রনায়ক রিয়াজ

হলিবিডি ডেস্ক :: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন না পেয়ে বিএনপির থেকে পদত্যাগ করেছেন দলটির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ-সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক এবং জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মনির খান। রবিবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন। তার এই পদত্যাগের একটি নিউজ শেয়ার করে রবিবার রাতে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়ক রিয়াজ। পাঠকদের জন্য তার সেই স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো। আমি মানুষকে তাদের ব্যক্তিগত মতাদর্শের মাপকাঠিতে বিচার করি না। এই মানুষটিকে আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি। তিনি যেমন একজন ভালো শিল্পী, তেমনই ভালো মানুষ। কিন্তু এই মানুষটিকে তার এতো বছরের পরিশ্রমের কি প্রতিফল দেয়া হলো? তাও একজন ‘রাজাকারের’ জন্য? ত্রিশ ...

বিস্তারিত »

বাংলাদেশের স্বাস্থ্যসেবা ও চিকিৎসা খাতে উন্নয়ন

নজরুল ইসলাম তোফা:: আত্মতুষ্টি মানুষের সকল কর্মকাণ্ডের এক প্রেরণার উৎস। কোনো কাজ করে যদি মানসিক প্রশান্তি পাওয়া যায় তাহলেই মানুষ ঐ কাজের দিকে ধাবিত হবে। মানুষ সমাজিক ভাবে এ জগৎ সংসারে আগমন করে বিশেষভাবে কোনো না কোনো দ্বায় দ্বায়িত্ব নিয়েই। অর্থাৎ, বলতেই হয় এক ধরনের আদর্শ জীবন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে। এ আদর্শের বিচিত্র কর্মকান্ডে সুন্দর জীবনকে যদি মুখরিত করে তোলা যায়, তবে জীবন যাপনের স্বার্থকতা প্রমাণিত হয় বৈকি। পরের জন্য নিজেকেই বিলিয়ে দিতে হবে আদর্শকে প্রতিষ্ঠার জন্য, তবেই হয়তো বা মানুষকে আনন্দ দান করা সম্ভব। এর মাঝে রয়েছে মানসিক প্রশান্তি। আর মহৎ কার্যাবলিই মানুষকে দিতে পারে সুখের সন্ধান। সুতরাং সুখের সন্ধানেই ...

বিস্তারিত »

পরিবহন ব্যবস্থায় জনদুর্ভোগ : অামরা নিরুপায়!

শুরুটা যদি হয় সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ থেকে, সেক্ষেত্রে ফেরিঘাট হতে সিলেট শহর ; বাস ভাড়া ২৫ টাকা। সিএনজিতে দিতে হতো প্রথমদিকে ৩০ টাকা, তারপর ৩৫, অার বর্তমানে প্রায় ৪০-৪৫ টাকা। কিন্তু হিসাব এখানেই শেষ নয়.. ফেরিঘাট সিএনজি স্ট্যান্ড সবসময় গাড়িতে পরিপূর্ণ থাকে, এরা সবাই সিলেট যাওয়ার অপেক্ষায়.. ; হুমায়ূন রশীদ স্কয়ার পর্যন্ত প্রত্যেক সিট ভাড়া ৪০ টাকা। অর্থাৎ পিছনে তিন, সামনে দুই মিলে মোট পাঁচ সিটের ভাড়া প্রায় ২০০ টাকা। কিন্তু অাপনি ২০০ টাকা নিয়ে ফেরিঘাটে যান, গাড়ি পাবেন না। ফেঞ্চুগঞ্জ’র বেশীরভাগ যাত্রীই জানেন না মিটারের হিসাব, অার জানলেও লাভ নেই। কেননা মিটার এখানে নামমাত্রই চলে। অারেকটি উদাহারণ দিচ্ছি, পালবাড়ী টু ...

বিস্তারিত »

১৫ আগস্ট ১৯৭৫ছিল, এ যেন হৃদয়বিদারক আর এক কারবালা

এম.সোহেল রানা, মেহেরপুর (২য় পর্ব) . অবসরপ্রাপ্ত কর্ণেল ফারুক রহমানের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে তিনি বলেন- খোন্দকার মোশতাকের নির্দেশে তিনি ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট তিনি বঙ্গবন্ধুর বাসভবনে অভিযান পরিচালনা করেন। ওই বাসভবনে অভিযানের সার্বিক দায়িত্বে ছিলেন তিনি। অবসরপ্রাপ্ত কর্ণেল রশিদ দায়িত্ব পালন করেছেন বঙ্গভবনে, অবসরপ্রাপ্ত মেজর ডালিম ছিলেন বেতার কেন্দ্রে। গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে সামরিক কর্মকর্তাদের দায়িত্ব বন্টন করেছেন তিনি (ফারুক) নিজেই। ঘাতকদের মূল টার্গেট ছিল যে তারা বঙ্গবন্ধুসহ তার পুরো পরিবার ও তার নিকট আত্মীয় কাউকেই পৃথিবীতে জীবিত রাখবে না। সেই অনুযায়ী তারা সেদিন ঐ ঘাতকরা ধানমন্ডির ৩২ নম্বর বাড়ীতে হত্যার এক জঘন্য উল্লাসে মেতে উঠেছিল। হত্যা করেছিল বিভিন্ন ঘরে ও একাধিক বাড়ী ...

বিস্তারিত »

১৫ আগস্ট ১৯৭৫ছিল, এ যেন হৃদয়বিদারক আর এক কারবালা

এম.সোহেল রানা, মেহেরপুর . (১ম পর্ব) “যতদিন রবে পদ্মা যমুনা গৌরী মেঘনা বহমান, ততদিন রবে কীর্তি তোমার শেখ মজিবুর রহমান” আজ ১৫ই আগস্ট ২০১৮। বাঙালি জাতীর জন্য এক কলঙ্কময় দিন একটি অধ্যায়। জাতীয় শোক দিবস। ৪৩ বছর আগে ১৯৭৫ সালের এই দিনে একদল বিপদগামী পাক হায়েনাদের প্রেতাত্মা তথা সেনাবাহিনীর একটি চক্রান্তকারী চক্র সপরিবারে হত্যা করে বাঙালি জাতীর জনক, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ সন্তান, বাঙালি জাতীর অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। বিগত ১৯৪৭, ১৯৫২, ১৯৬৯, ১৯৭০ সহ বিভিন্ন সময়ে মৃত্যুর দ্বার হতে বার বার ফিরে এসেছিলেন, ৭১-এ পাকিস্তানী হায়েনারা যা করতে পারে নাই, সেই কাজটিই অত্যন্ত ঠান্ডা মাথায় ও পূর্বপরিকল্পিতভাবে সম্পাদন ...

বিস্তারিত »

কিছু কথা মিত্রের জন্য ব্যাথা প্রসঙ্গঃ সিলেট সিটি নির্বাচন

সাফাত রহমান সিলেট থেকে::: প্রসঙ্গঃঃ সিলেট সিটি নির্বাচন (১) সিসিক নির্বাচনে সরকার প্রদত্ত জামায়তের ভোটের অংক নিয়ে চলছে ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ। মিত্র পক্ষ এ ব্যাপারে এক ধাপ এগিয়ে। মিত্র পক্ষের জাতীয় নেতৃবৃন্দের চাইতে পাড়া গায়ের তথাকথিত নেতারা যেন এক একজন স্থায়ী কমিটির সদস্য। জামায়াত জোটে থাকবে কি না তারা সেটা এখান থেকেই নির্ধারণ করছেন। (২) জোটের ব্যাপারে জামায়াতের অবস্থানঃ জামায়াত দেশের বৃহত্তর স্বার্থে ২০ দলীয় জোটে আছে। জামায়াতেরও তৃনমূল নেতাকর্মীরা চায় জামায়াত জোট থেকে বের হয়ে যাক। তৃনমূল পর্যায়ে রাজনীতি করে জাতীয় বিষয়গুলো বোধগম্য হওয়ার সুযোগ নাই। তাই জামায়াতের হাইকমান্ড তৃনমুলের দাবী উপেক্ষা করে এখনো জোটে আছে, আর সেটা মুলত দেশ ...

বিস্তারিত »

জেনে নিন দেহরক্ষীরা সব সময় কালো সানগ্লাস পরার কারন

হলিবিডি ডেস্ক::তারকাদের ছায়াসঙ্গী কখনও খেয়াল করে দেখেছেন এই দেহরক্ষী বা বডিগার্ডেরা বেশির ভাগ সময় চোখে কালো রোদ চশমা পরে থাকেন। তারকাদের সঙ্গে কোনও অনুষ্ঠানে হোক বা গুরুগম্ভীর রাজনৈতিক বৈঠক, দেহরক্ষীদের চোখে শোভা পায় কালো সানগ্লাস। কী ভাবছেন? ফ্যাশন বা স্মার্ট দেখানোর জন্যই দেহরক্ষীরা সানগ্লাস পরেন? একেবারেই না। এর পিছনে ওতপ্রোত ভাবে জড়িয়ে রয়েছে নিরাপত্তার বিষয়টিও। দেহরক্ষীর প্রশিক্ষণ দেওয়ার সময়েই এই বিষয়ে সচেতন করে দেওয়া হয় তাঁদের। প্রথমত, কোনও অপরাধীর চোখকে ধুলো দিতেই এই বিশেষ ট্রিক ব্যবহার করেন দেহরক্ষীরা। সানগ্লাস থাকায় তাঁদের নজর ঠিক কোথায়, কাদের অনুসরণ করছে সেটা বোঝা সম্ভব হয় না। ফলে খুব সহজেই চারপাশে নজরদারি চালানো যায়। দ্বিতীয়ত, ...

বিস্তারিত »

সোয়া এক কিলোমিটার লম্বা আইসক্রিম!

ডেস্ক::বড় আইসক্রিম অনেকেরই প্রিয়। কিন্তু তাই বলে তা যদি সোয়া এক কিলোমিটারেরও বেশি হয় তাহলে কেমন হবে? সম্প্রতি এমন অদ্ভুত ঘটনাই ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। শুধু তাই নয়, আইসক্রিমটি দীর্ঘতম আইসক্রিম হিসেবে গিনেস রেকর্ড বুকেও স্থান করে নিয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যে একটি উৎসব উপলক্ষে বানানো হয়েছে এই বিশেষ মাপের আইসক্রিম। কয়েক হাজার স্বেচ্ছাসেবক একসঙ্গে কাজ করে তৈরি করেছেন ১৩৮৬ দশমিক ৬২ মিটার লম্বা আইসক্রিমটি। আইসক্রিমটি তৈরিতে ব্যবহার করা হয়েছে ৫০০ গ্যালন ভ্যানিলা ও ক্যান্ডি ক্রাঞ্চ চকোলেট, ৩০০ গ্যালন চকোলেট ও স্ট্রবেরি সিরাপ। আর সুস্বাদু করতে ব্যবহার করা হয়েছে দুই হাজার ক্যান হুইপ্ট ক্রিম, ২৫ পাউন্ড স্প্রিংকলস ও ২০ হাজার চেরি ফল। ...

বিস্তারিত »

বিজয়ের পর মাহাথির মোহাম্মাদের সেই অলোচিত টুইট

ডেস্ক::মালয়েশিয়ার সাধারণ নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভের পরপরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে একটি পোস্ট করেন ৯২ বছর বয়সী মাহাথির মোহাম্মদ। টুইটটির অনুবাদ অনেকটা এমন- আমি আমার জীবনের শেষ প্রান্তে চলে এসেছি। আমার জীবনের বাকি অংশ মহান আল্লাহর প্রতি আনুগত্যশীল হয়ে ও আত্মসমর্পন করে কাটাতে চাই। আমি এখনো আমার একাকীত্বে মনোনিবেশ করতে পারি। তবুও যখন আমি আমার চোখ বন্ধ করি তখন দেখতে পাই, আমার জনগণকে শোষন করা হচ্ছে। আমি দেখেছি, শয়তান দ্বারা পরিচালিত লোভাতুর হাত আমার যুবকদের অধিকার কেড়ে নিচ্ছে। আমি জানি আমার কিছু করতে হবে। যারা নিজেদের অপরাধবোধকে অনুধাবন করে না তাদের অপরাধগুলো চোখের সামনে দেখে আমি হাতগুটিয়ে বসে থাকতে পারি না। ...

বিস্তারিত »

“জঘন্য কিছু প্রথাকে ‘না’ বলার অভ্যাস করতে হবে!”

বাংলা গ্রীষ্ম মৌসুম চলমান। এবং শুরু হয়েছে মুসলিম উম্মাহর জন্য সবচেয়ে পবিত্র আরবি মাস রামদ্বানুল মোবারক। আর এই গ্রীষ্ম মৌসুম ও রামদ্বান মাস কে উপলক্ষ করে বৃহত্তর সিলেটে (অন্য জায়গা সম্পর্কে আমার ধারণা খুবই নগন্য। তবে অন্য জায়গায় সিলেটের মতো জোড়ালো না এসব প্রথা এটা নিশ্চিত)একটি প্রথা বর্তমানে জগন্য রূপ লাভ করেছে! আর তা হলো বিবাহিত দম্পতিকে কেন্দ্র করে মেয়ে পক্ষ ছেলে পক্ষের বাড়িতে গ্রীষ্ম মৌসুমে আম কাঠাল আর রামাদ্বান মাসে ইফতারি পাঠানো। দেখা বা জানা মতে এই প্রথা কে এমন ভাবে পালন করা হয় যেন মেয়ের বাড়ি কর্তৃক ছেলের বাড়িতে আমকাঠাল বা ইফতারি না পাঠানো গর্হিত অপরাধ। একটু লক্ষ ...

বিস্তারিত »