Main Menu

১৫ বছর পর খুলনা জেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ১৩ জুন

হলিবিডি ডেস্কঃ কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে জেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে যোগ্য নেতৃত্ব নির্বাচিত করতে চায় তৃণমূলের কর্মীরা। এ লক্ষে জেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের সম্ভাব্য তারিখও নির্ধারণ করা হয়েছে। দীর্ঘ ১৫ বছর পর হতে যাচ্ছে জেলা যুবলীগের সম্মেলন। আগামী ১৩ জুন জেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের দিন ধার্য্য করা হয়েছে। সম্মেলনকে ঘিরে নেতা-কর্মীদের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে ব্যাপক প্রাণচাঞ্চল্য।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সম্মেলন প্রস্তুতির অংশ হিসেবে খুলনার ৯ উপজেলায় ২৫ জন করে কাউন্সিলর থাকবে। কাউন্সিলরদের তালিকাও অনেক আগে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। নগরীর শহিদ হাদিস পার্কে সম্মেলনের স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র শেখ হেলাল উদ্দিন এমপি সম্মেলনে প্রধান অতিথি থাকবেন বলে শোনা যাচ্ছে। জেলা পরিষদ মিলনায়তনে দ্বিতীয় অধিবেশন অনুষ্ঠিত হবে। দ্বিতীয় অধিবেশনে সভাপতিত্ব করবেন যুবলীগ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী। কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে নেতা নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন তৃণমূল নেতা-কর্মীরা।

এদিকে সম্মেলনে সভাপতি পদে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ মোঃ আবু হানিফ, জেলা যুবলীগ সহ-সভাপতি আজিজুল হক কাজল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক চৌধুরী মোহাম্মদ রায়হান ফরিদ, জেলা যুবলীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সরদার জাকির হোসেন ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অজিত বিশ্বাস এবং সাধারণ সম্পাদক পদে জেলা যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিয়াজ, জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও রূপসা উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক এবিএম কামরুজ্জামান, জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকব জসীম উদ্দিন বাবু, জেলা যুবলীগের প্রচার সম্পাদক জলিল তালুকদার, জেলা যুবলীগের সহ-সম্পাদক জামিল খাঁন, জেলা ছাত্রলীগ সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হারুন অর রশীদ, জেলা সৈনিক লীগ সভাপতি এস এম ফরিদ রানা ও জেলা যুবলীগের সহ-ক্রীড়া সম্পাদক বেগ আমীনের নাম শোনা যাচ্ছে। এছাড়া নেতৃত্ব প্রত্যাশীদের মধ্যে মাহফুজুর রহমান সোহাগ ও সাবেক ছাত্রনেতা বিধান চন্দ্র রায়ের নামও শোনা যাচ্ছে।

একাধিক নেতা-কর্মী বলেন, যুবলীগ চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে জেলা যুবলীগের সম্মেলনে নেতৃত্ব নির্ধারণ করতে হবে। শোনা যাচ্ছে যারা দীর্ঘদিন ধরে জেলা যুবলীগের হাল শক্ত হাতে ধরে রেখেছেন তারাই কাউন্সিলরদের ভোটের মাধ্যমে সুুবিধাজনক অবস্থানে থাকলে সংগঠন মজবুত হবে। জাঁকজমক এবং বর্ণাঢ্য সম্মেলনের মাধ্যমে যোগ্য নেতৃত্ব গড়ে তোলার মধ্য দিয়ে বিদায় নিতে চায় জেলা যুবলীগ সভাপতি মোঃ কামরুজ্জামান জামাল ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আকতারুজ্জামান বাবু এমপি।

জেলা যুবলীগের সভাপতি কামরুজ্জামান জামাল বলেন, ‘জাঁকজমকপূর্ণ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে যোগ্য নেতৃত্ব গড়ে তোলার জন্য এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নেতাদের চাপিয়ে দেয়া কোনো নেতৃত্ব কমিটিতে আসবে না। কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে নেতা নির্বাচিত করা হবে।

উল্লেখ্য, ২০০৩ সালের ২৫ মে জেলা যুবলীগের সর্বশেষ ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে কামরুজ্জামান জামাল সভাপতি ও আকতারুজ্জামান বাবু সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০০৪ সালের ১৭ জানুয়ারি জেলা যুবলীগের ৭১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়।






Related News

Comments are Closed