Main Menu

১২ বছর কয়েক জমিয়ে মাকে ফ্রিজ উপহার

অর্থবাণিজ্য ডেস্ক : মায়ের জন্মদিনে একটি ফ্রিজ উপহার দিতে চেয়েছিলেন ১৭ বছরের যুবক রাম সিং। চাকরি-বাকরি কিছুই নেই। এখন কলেজে পড়ছেন। তাই ১২ বছর ধরে এক, দুই, পাঁচ ও ১০ টাকার কয়েন জমিয়েছেন।

এদিকে ১২ বছর ধরে ফ্রিজ কেনার জন্য কয়েন জমিয়েও আরো দুই হাজার টাকা ঘাটতি পড়ে ওই যুবকের। তবুও ভারতের যোধপুরের সাহারানপুরের রাম সিংয়ের সেই স্বপ্নপূরণ হয়েছে। চলতি বছরে মায়ের জন্মদিনে কিনেছেন কাঙ্খিত সেই ফ্রিজ।

জানা গেছে, ২০০৭ সালে রাম সিংয়ের বয়স যখন পাঁচ বছর তখন থেকেই কয়েন জমানো শুরু করেন। ১২ বছর পর সব কয়েনের ওজন গিয়ে দাঁড়ায় ৩৫ কেজিতে।

এদিকে মায়ের জন্মদিনের দিন রাম সিং সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন দেখেছিল, ফ্রিজ কেনার ওপর ছাড় দেয়া হচ্ছে। সেটা দেখে আর সময় নষ্ট করেননি। সেই ৩৫ কেজি কয়েন নিয়ে রাম সিং সোজা হাজির হন ফ্রিজের শোরুমে। ওই সব কয়েন গুনতে তার প্রায় চার ঘণ্টা লেগেছিল।

শিবশক্তিনগরের ওই শোরুমে যাওয়ার পর মালিক বুঝতে পারেন যে, ফ্রিজের গোটা দামটাই রাম সিং কয়েনের মাধ্যমে দেবেন। তবে শোরুমে আসার পর দেখা যায়, তার কাছে রয়েছে ১৩ হাজার পাঁচশ টাকা। পছন্দমতো ফ্রিজ কিনতে হলে আরো দুই হাজার টাকা দরকার।

কিন্তু শোরুম মালিক হরিকৃষ্ণাণ খাতরি সব কথা শুনে রাম সিংহের প্রতি অভিভূত হয়ে পড়েন। আরো বেশি ছাড় দিয়ে ১৩ হাজার পাঁচশ টাকাতেই ফ্রিজটি তুলে দেন রাম সিংয়ের হাতে।

কয়েন জমানো প্রসঙ্গে রাম সিং বলেন, আমাদের পুরনো ফ্রিজটি খারাপ হয়ে গিয়েছিল। দীর্ঘদিন ধরে মা নতুন ফ্রিজ কেনার কথা বলছিলেন। তাই আমি কয়েন জমাতে শুরু করি।

জানা গেছে, একটি বড় পাত্রের মধ্যে কয়েন জমাতো রাম সিং। যখনই পাত্রটি ভরে যেত, তখনই টাকা বের করে মায়ের হাতে দিত। কিন্তু কয়েনগুলো জমিয়ে রাখত।

তার কথায়, একটা বড় পাত্রে কয়েন রাখতাম। এক টাকা, দুই টাকা, পাঁচ টাকা, ১০ টাকার কয়েন আলাদা করে রাখা থাকত। ঘটনার দিন একটা বস্তায় কয়েন ভরে শোরুমে যাই।






Related News

Comments are Closed