Main Menu

সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রীকে জোরপূর্বক অপহরণ

ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধি::
সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার ঘিলাছড়া দ্বিমুখী উচ্চবিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে জোরপূর্বক অপহরণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত ৩১ ডিসেম্বর এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গত ৪ জানুয়ারি ওই ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে ফেঞ্চুগঞ্জ থানায় মামলা করেছেন।

অপহৃত ছাত্রীর পরিবার ও মামলা সূত্রে জানা যায়, স্কুলে আসা-যাওয়ার সময় পুর্ব যুদিষ্টিপুর গ্রামের সাইফুল ইসলাম এর পুত্র তাজ উদ্দিন টেনাই ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করতেন এবং প্রেমের প্রস্তাব দিত এতে ওই ছাত্রী ক্ষিপ্ত হয়ে তার পিতাকে বিষয়টি জানালে ভিকটিমের পিতা বখাটের পিতাকে জানালে তারা কোন প্রকার কর্ণপাত করেননি এতে টেনাই মিয়া আরও উঠেপড়ে লাগে ছাত্রীর পেছনে।

গত ৩১ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে নয়টার দিকে ওই ছাত্রী বাড়ি থেকে ঘিলাছড়া দ্বিমুখী উচ্চবিদ্যালয়ে জেএসসি পরিক্ষার ফলাফল জানতে যায় এবং পরিক্ষার ফলাফল যেনে বাড়ীতে ফেরার পথে পুর্ব যুদিষ্টিপুর গ্রামের বখাটে টেনাই পূর্বপরিকল্পিত ভাবে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রীকে অজ্ঞাতনামা একটি সিএনজি তে জোরপূর্বক টানাহেঁচড়া করে তুলে নিয়ে যায়।

অপহৃত ছাত্রীর পিতা বলেন আমার মেয়েকে অপহরণ করার খবর পেয়ে আমি হতাশা হয়ে আশ-পাশ এলাকায় খোঁজাখুজি করার সময় বখাটে তাজ উদ্দিনের পিতা সাইফুল ইসলাম মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমার ছোট ভাইকে বলেন তোমার ভাতিজী আমার ছেলে তাজ উদ্দিনের হেফাজতে আছে তোমরা কোন চিন্তা করনা তাকে আমি তোমাদের কাছে ফিরিয়ে দেবো এবং এবিষয়ে কাউকে কিছু বলনা বললে তোমাদেরই মানসম্মান যাবে এই বলে তিনি ফোন রেখে দেন।

পরে আমরা আমার মেয়ের অপেক্ষায় তাকিয়ে থাকি কিন্তু অপেক্ষার ঘটেনি অবসান দুই দিন পার হবার পরে আবারো যোগাযোগ করি বখাটের পিতা সাইফুলের সাথে তখন তিনি জানান যে উনার ছেলে এখন কোথায় আছে তা তিনিও জানেন না।

তার এই কথা শুনে বেড়ে যায় চিন্তা আরো তখন আর মানসম্মান এর চিন্তা না করে দারস্থ হই ফেঞ্চুগঞ্জ থানায় এবং মামলাও করি অপহরণকারী বিরুদ্ধে তিনি আরও বলেন না জানি আমার মেয়ে এখন কেমন আছে বা কোথায় আছে একমাত্র আল্লাহ ভালো জানেন।

এবিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা, ফেঞ্চুগঞ্জ থানার এস আই রঞ্জিত দাশ বলেন, এই ঘটনায় ওই ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে তাজ উদ্দিন টেনাই এর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। ওই ছাত্রীকে উদ্ধারের চেষ্টা করছে পুলিশ এবং অপহরণকারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।






Related News

Comments are Closed