Main Menu

সাতক্ষীরা পৌরসভার টেন্ডার নিয়ে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করায় দৈনিক পত্রদূত পত্রিকার সম্পাদক ও ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা

স্টাফ রিপোর্টার ঃ সাতক্ষীরা পৌরসভার টেন্ডার নিয়ে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করায় দৈনিক পত্রদূত পত্রিকার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে সাতক্ষীরার বিজ্ঞ জুডশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-১ এ সাতক্ষীরা পৌরসভার প্যানেল মেয়র ফারহা দিবা খান সাথী বাদী হয়ে পেনাল কোডের ৫০০/৫০১/৫০২/৫০৫অ/১০৯ ধারা মোতাবেক এ মামলা দায়ের করা হয়েছে। যার মামলা নং-২৯৬/১৯ তারিখ ০১/০৭/২০১৯। মামলার আসামীরা হলেন সাতক্ষীরা থেকে প্রকাশিত দৈনিক পত্রদূত ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক লায়লা পারভীন সেঁজুতি ও মাতা দৈনিক পত্রদূত পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক লুৎফুন্নেছা বেগম। গত ২৯ মে বুধবার তারিখে সাতক্ষীরার দৈনিক পত্রদূত পত্রিকায় ১ম পাতায় ‘উপজেলার বাতাস সাতক্ষীরা পৌরসভায়, টেন্ডার ছাড়াই ৪৬ লক্ষ টাকার ২টি প্রকল্প ভাগ-বাটোয়ারা’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি সম্পুর্ন্ন মিথ্যা, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও মানহানীকর হওয়ায় এতদ সংক্রন্ত আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণের নিমিত্তে লিগ্যাল নোটিশ জারী করা হয়। সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতির পক্ষে গত-ইং-১১/০৬/২০১৯ তারিখে তার আইনজীবী এ্যাড. এস.এম আলমগীর আলম (বাপী)। রেজিঃ ডাকযোগে নোটিশটি প্রেরণ করেন। এই লিগ্যাল নোটিশ পওয়ার ৭ দিনের মধ্যে ঐ প্রকাশিত মিথ্যা সংবাদের জন্য জনগণের উদ্দেশ্যে দুঃখ প্রকাশ করে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করতঃ ভূল স্বীকার করিয়া দৈনিক পত্রদূত পত্রিকায় পুনরায় এতদ সংক্রন্ত বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ না করলে দৈনিক পত্রদূত পত্রিকার বিরুদ্ধে প্রেস কাউন্সিল এ্যাক্ট অনুযায়ী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে জাতীয় প্রেসক্লাব ঢাকাসহ অন্যান্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ এবং তথ্য মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ দাখিল করা হবে এবং একই সাথে প্রকাশিত সংবাদটি সম্পুর্ন্ন মিথ্যা, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও মানহানীকর হওয়ায় প্রচলিত আইনে ক্ষতিপূরণের মামলাসহ অন্যান্য মামলা দায়ের করা হবে বলে জাননো হয়। কিন্তু দৈনিক পত্রদূত পত্রিকা ভূল স্বীকার করিয়া সংবাদ প্রকাশ না করায় এ মামলা করা হয়েছে।
মামলার বিবরণে জানা যায় যে, সাতক্ষীরা থেকে প্রকাশিত দৈনিক পত্রদূত পত্রিকায় নিজস্ব প্রতিনিধির বরাত দিয়ে পৌরসভার বিরুদ্ধে যে সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে উক্ত সংবাদটি সম্পুর্ন্ন মিথ্যা, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও মানহানীকর। সাতক্ষীরা পৌরসভার মাসিক সভায় সকলের সর্ব-সম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত মোতাবেক গত ১২/০৪/২০১৯ তারিখে ইংরেজি জাতীয় দৈনিক পত্রিকা ডেইলি ইন্ডাস্ট্রি, জাতীয় দৈনিক আমার সংবাদ ও সাতক্ষীরার স্থানীয় দৈনিক কালের চিত্র পত্রিকায় উক্ত দরপত্র আহবান করিয়া বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয় এবং নির্দিষ্ট তারিখে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ও সাতক্ষীরা পৌরসভায় উক্ত দরপত্রের মোট ৩টি সিডিউল জমা পড়ে। যাচাই বঁছাই শেষে ২টি সিডিউল বৈধ প্রমাণিত হয়। এ প্রকল্প কোন বিদেশী সংস্থার অর্থায়ণে হয়নি। অথচ প্রকাশিত সংবাদে বিদেশী সাহার্য্য সংস্থার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এই মিথ্যা সংবাদ পরিবেশনের ফলে সাতক্ষীরা পৌরসভা ও পৌরবাসীর ভাবমুর্তি নষ্ট করা হয়েছে এবং সেই সাথে পৌরসভার উন্নয়ন কাজকে বাঁধাগ্রস্থ করার অপচেষ্টা করা হয়েছে। উক্ত মিথ্যা সংবাদ পরিবেশনের ফলে যদি বিদেশী সংস্থা জার্মান প্রকল্পের প্রায় দুই শত কোটি টাকা ফেরত যায় তাহলে সাতক্ষীরা পৌরসভার দেড়/দুই লক্ষ মানুষ আশু উন্নয়ন বঞ্চিত হবে। দৈনিক পত্রদূত পত্রিকায় নিজস্ব প্রতিনিধির বরাত দিয়ে উক্ত সংবাদের স্বপক্ষে কোন স্বাক্ষ্য প্রমাণ (দালিলিক) না থাকা স্বর্থেও এবং বিষয়ে বর্ণিত প্রকাশিত সংবাদটি ভূয়া, মিথ্যা, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও মানহানীকর জানা স্বর্থেও একদলীয় সমস্বার্থ বিশিষ্ট সম্পাদক ও প্রকাশক (কন্যা ও মাতা) হওয়ায় উক্ত মিথ্যা ও মানহানীকর সংবাদ পত্রিকায় ছাঁপায়া অধিক মুনাফা অর্জনের জন্য বাজারে বিক্রয় করিয়াছেন। উক্ত মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের বিরুদ্ধে পৌর মেয়র পৌরসভার কাউন্সিলর ও স্টাফদের নিয়ে সকল তথ্য প্রমাণ নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে। এর পরও দৈনিক পত্রদূতের পক্ষ থেকে কোন ভূল স্বিকার করে কোন বিবৃতি না দেওয়ায় সাতক্ষীরা পৌরসভা আদালতে প্রতিকার ও আসামীদের দৃষ্ট্রান্তমূলক শাস্তি চেয়ে এ মামলাটি দায়ের করেছে।






Related News

Comments are Closed