Main Menu

সাংবাদিক এইচ এম আলাউদ্দিনের বাড়িতে হয়রানির নিন্দা

হলিবিডি ডেস্কঃ খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক কোষাধ্যক্ষ, দৈনিক পূর্বাঞ্চলের স্টাফ রিপোর্টার, টিআইবির অনুসন্ধানী সাংবাদিক পুরষ্কারপ্রাপ্ত সাংবাদিক এইচ আলাউদ্দিনের বাড়িতে ওজোপাডিকো কর্মকর্তা কর্তৃক হয়রানীর নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন প্রিপেইড মিটারে বিদ্যমান দুর্নীতি প্রতিরোধ সংগ্রাম কমিটির নেতৃবৃন্দ।
বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার যখন সকলের দুয়ারে দুয়ারে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিতে কাজ করছে, সেইসময় ওজোপাডিকোর কিছু অসাধু দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা নিজ স্বার্থকে হাসিল করতে মাঠে নেমেছেন। দু’শ কোটি টাকার রিবেট অর্থাৎ দু’কোটি টাকা ফেরত দেয়া, সফটওয়ার জটিলতা দূর করা, মিটার ভাড়া না নেয়া, ভ্যাট জটিলতা দূর করা, মিটার লক হয়ে গেলে বিনা পয়সায় সচল করে দেয়া, মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে প্রি-পেইড গ্রাহকদের হয়রানী বন্ধ করা, ‘নো ট্রেস’ বিলের নামে পুরনো অন্যের বিল বর্তমান গ্রাহকদের ওপর চাপিয়ে না দেয়া, দুর্নীতির মাধ্যমে কোম্পানী সচিবের চাকরীর মেয়াদ ৫ বছর বৃদ্ধি এবং কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালকের একাধিক গাড়ি ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ব্যবস্থা করা, প্রকল্পের নামে হাজার কোটি টাকা খরচ করা হলেও এর সুফল গ্রাহকরা কেন পাচ্ছে না সে বিষয়ে কোম্পানী কর্তৃপক্ষকে জবাবদিহিতার আওতায় আনা, সংশ্লিষ্ট নন এমন ব্যক্তিদের বিদেশ সফরের নামে কোম্পানী ও ঠিকাদারদের টাকা নষ্ট করার বিষয়গুলো তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি উঠেছে তখনই তারা এই আন্দোলনকে অন্যখাতে নেয়ার জন্য চক্রান্ত করছেন। নেতৃবৃন্দ বলেন, গ্রাহকদের ন্যায্য দাবি থেকে কোন প্রকার হয়রানী করে পিছু হটানো যাবে না। সাংবাদিক আলাউদ্দিন মঙ্গলবার দুপুরে বাড়ির বাইরে অবস্থান করাকালীন ওজোপাডিকোর বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের সংশ্লিষ্ট ফিডারের ইনচার্জ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীকে সাথে নিয়ে তার বাড়িতে গিয়ে সাংবাদিক আলাউদ্দিন সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য জানতে চান। বাড়ির হোল্ডিং নম্বর চাওয়া ছাড়াও বিভিন্ন প্রশ্নে বাড়ির নারীদের অহেতুক হয়রাণী করেন। এসময় ওজোপাডিকোর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা আলাউদ্দিনের ব্যবহৃত মিটারের ছবি তুলে নিয়ে যান। সাংবাদিক আলাউদ্দিন বাড়িতে ফিরলে সার্বিক বিষয় শুনে সংশ্লিষ্ট বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী ও সুপারভাইজারের সাথে কথা বললে তাদের কথায়ও অসংলগ্নতা পাওয়া যায়। এভাবে একজন সাংবাদিকের বাড়িতে অহেতুক হয়রানীর মধ্যদিয়ে গোটা সাংবাদিক সমাজকে তাদের লেখনী থেকে হঠানোর চক্রান্ত শুরু হয়েছে বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।
বিবৃতিদাতারা হলেন প্রিপেইড মিটারে বিদ্যমান দুর্নীতি প্রতিরোধ সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক ডা: শেখ বাহারুল আলম যুগ্ম-আহবায়ক শরীফ শফিকুল হামিদ চন্দন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোড়ল নুর মোহাম্মদ, এ্যাডঃ শামীমা সুলতানা শিলু সদস্য সচিব সাংবাদিক মহেন্দ্রনাথ সেন, সহকারী সদস্য সচিব গেøাবাল খুলনার আহবায়ক শাহ মামুনুর রহমান তুহিন, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির নেতা আলহাজ্ব মহিউদ্দিন আহমদ, আওয়ামীলীগ নেতা শাহজাহান পারভেজ, পোল্ট্রি ফিস ফিড মালিক সমিতির নেতা এসএম সোহরাব হোসেন, নিরাপদ সড়ক চাই-নিসচা’র জেলা সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় সদস্য এসএম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, নাগরিক নেতা সৈয়দ ইমাম হোসেন বাচ্চু, জেসমিন জামান, কামরুল কাজল, আশরাফ হোসেন, মানবাধিকার কর্মী জি এম রাসেল ইসলাম প্রমুখ।
এমইউজে’র তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ ঃ মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন খুলনার সাবেক সাধারণ সম্পাদক, খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক কোষাধ্যক্ষ, দৈনিক পূর্বাঞ্চলের সিনিয়র রিপোর্টার, টিআইবির অনুসন্ধানী পুরষ্কারপ্রাপ্ত সাংবাদিক এইচ আলাউদ্দিনের বাড়িতে ওজোপাডিকো কর্মকর্তা কর্তৃক হয়রানীর নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন বিএফইউজে ও মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন (এমইউজে) খুলনার নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন বিএফইউজে’র সভাপতি রুহুল আমিন গাজী ও মহাসচিব এম আব্দুল্লাহ, এমইউজে খুলনার সভাপতি মো. আনিসুজ্জামান, সহ-সভাপতি এহতেশামুল হক শাওন, সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) আবুল হাসান হিমালয় ও কোষাধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক রানা, বিএফইউজে’র সাবেক সহ-সভাপতি ড. মো. জাকির হোসেন, সাবেক নির্বাহী সদস্য শেখ দিদারুল আলম ও এহতেশামুল হক শাওন।






Related News

Comments are Closed