Main Menu

প্রেস ব্রিফিংয়ে কাঁদলেন খুলনার পুলিশ সুপার রূপসায় সংগ্রাম হত্যায় মূল হোতা রাহাত শিকদারসহ গ্রেফতার

হলিবিডি ডেস্কঃ
রূপসায় মাছ কোম্পানীর কর্মচারী মোঃ সারজিল রহমান সংগ্রাম (২৮)-কে প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত রাহাত শিকদারসহ ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার খুলনা জেলা পুলিশের সুপার (এসপি) প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে এ বিষয়টি জানিয়েছেন। সংগ্রাম হত্যাকান্ডের বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ সাংবাদিকদের সামনে কেঁদে ফেললেন। গ্রেফতারকৃতরা হলো নগরীর টুটপাড়া মহিরবাড়ি খালপাড় এলাকার রাহাত শিকদার, আলমগীর মোল্লা ও বায়জিদ সরদার।

তিনি ব্রিফিংকালে বলেন, হত্যাকান্ডের তদন্তকালে এলাকার মানুষের কাছে তার বিষয়ে খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে মোঃ সারজিল রহমান সংগ্রাম খুব ভালো ছেলে ছিল। বাবা-মায়ের আদরের ছেলে ছিল সে। কাজ থেকে এসে তার মা-বাবাকে নিজ হাতে ভাত খাওয়াতো সংগ্রাম। আজ তার মা-বাবা ভাতের প্লেট সামনে নিয়ে বসে বসে কাঁদে, কখন আসবে তাদের প্রিয় সন্তান।

তিনি আরও বলেন, ব্যক্তিগতভাবে সেখানে গিয়ে সন্তান হারা এক বাবা-মায়ের এচিত্র আমার হৃদয়ে নাড়া দিয়েছে। আমি তখন চোখের পানি ধরে রাখতে পারিনি। এসব কথা বলতে বলতেই এসপি এস এম শফিউল্লার চোখ ভিজে ওঠে।

এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, মোঃ নুর আলম সিদ্দিকী, মোঃ জামান ও জেলা ডিবির ওসি তোফায়েল আহমেদসহ পুলিশ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে গতকাল গ্রেফতার তিন আসামিকে আদালতে সোপর্দ করা হলে তাদের মধ্যে রাহাত শিকদার ও আলমগীর মোল্লা স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছে। একই সাথে আসামি বায়জিদের ৭দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে জেলা ডিবি। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মনিরুজ্জামান জবানবন্দি রেকর্ড করেন। এছাড়া রিমান্ড শুনানীর জন্য আগামি ১০অক্টোবর দিন নির্ধারন করেছেন। এছাড়া এ মামলায় জড়িত আসামি সুমন মোল্লা এর আগেই আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে। জেলা ডিবি আলোচিত এ মামলায় কহিনুর বেগম ও আদম শেখ নামের আরও দু’জনকে গ্রেফতার করেছে। তারা বর্তমানে জেলা কারাগারে রয়েছে।

উল্লেখ্য গত ২৬ সেপ্টেম্বর দুপুর দেড়টার দিকে পূর্ব রূপসার বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমীন সড়কের হিমায়ন বরফ কলের পাশে সন্ত্রাসীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে সংগ্রামকে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। নিহতের মা মোসাঃ সাবিনা ইয়াসমিন মিলি বাদি হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে রূপসা থানায় মামলাটি দায়ের করেন (নং-২১)। নিহত সংগ্রাম বাগমারা গ্রামের শেখ মোঃ মুজিবর রহমানের ছেলে। সে স্থানীয় ব্রাইট সী ফুডস এ কম্পিউটার অপারেটর পদে কর্মরত ছিলেন।






Related News

Comments are Closed