Main Menu

পিতা-মাতা মুক্তি পেলেও ৫ মাস ধরে ভারতে বন্দি তিন সন্তান, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপ দাবি

হলিবিডি ডেস্ক
পিতা-মাতার মুক্তি মিললেও ৫ মাস ধরে ভারতের কারাগারে বন্দি এক দম্পত্তির তিন শিশু সন্তান। এদের বাড়ি পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানী উপজেলায়।

সন্তানদের মুক্তির জন্য দেশের বিভিন্ন দপ্তরে ঘুরেও কোনো কূল কিনারা পাচ্ছেন না তাঁরা।
জানা যায়, ইন্দুরকানী উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামের নান্টু ফরাজী ও তার স্ত্রী লাকী বেগম দুই শিশু কন্যা ও এক শিশু পুত্রকে নিয়ে ২০১৮ সালের ১৯ নভেম্বর ভারতের দিল্লি থেকে বাংলাদেশে ফেরার পথে ভারতের বনগাঁ জেলার গোপাল নগর থানা তাদেরকে আটক করে। পরে পুলিশ তাদেরকে ভারতের বনগাঁও আদালতে পাঠালে নান্টু ফরাজী ও তার স্ত্রীকে দমদম সেন্ট্রাল জেলে এবং তিন সন্তান তানিয়া আকতার (১৩), হেনা আকতার (১১) ও রাহান উদ্দিন ফরাজী (৯) কে পৃথক জেলে পাঠায়। এক মাস পরে আদালতের নির্দেশে পিতা-মাতাকে মুক্তি দিয়ে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয়। কিন্তু ৫ মাস পরও তিন সন্তানের মুক্তি মেলেনি। বর্তমানে কোন জেলে আছে তা-ও তার পিতা-মাতা ও স্বজনরা জানতে পারেনি। সন্তানদের খোঁজ না পাওয়ায় তারা উদ্ধিগ্ন।

পিতা নান্টু ফরাজী সাংবাদিকদের জানান, আমি স্ত্রী ও তিন সন্তানকে নিয়ে দিল্লি থেকে বাংলাদেশে ফেরার পথে বনগাঁও জেলার গোপার নগর থানা পুলিশ আমাদেরকে আটক করে আদালতে পাঠায়। আদালত আমাদেরকে দমদম জেলে এবং তিন সন্তানকে পৃথক জেলে পাঠায়। আদালত এক মাস পর আমাকে ও আমার স্ত্রীকে মুক্তি দিয়ে দেশে পাঠিয়ে দেয়। কিন্তু ৫ মাস যাবৎ আমার সন্তানদের কোনো হদিস পাচ্ছি না। দেশে আসার পর দিনের পর দিন সন্তানদের জন্য বিভিন্ন দপ্তরে ঘুরেও কোনো সন্ধান পাইনি। আমি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে আমার সন্তানদের যাতে ফেরত পেতে পারি তার জন্য মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।






Related News

Comments are Closed