Main Menu

খুলনা চেম্বারে ফের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সভাপতি হতে যাচ্ছেন কাজী আমিন

হলিবিডি ডেস্কঃ
ব্যবসায়ীদের বৃহত্তর সংগঠন খুলনা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিতে চলছে সিলেকশন ও সমঝোতা প্রক্রিয়া। যার ফলে নির্বাচনী তফশীল অনুযায়ী চলতি বছরে চেম্বারের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে সাধারণ সদস্য, সহযোগী সদস্য এবং বাণিজ্যিক দলে কোন প্রকার প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছাড়াই ২৪ জন পরিচালক নির্বাচিত হয়েছেন। আগামী ১৫ জুন বিকালে নির্বাচিত পরিচালকদের ভোটে চেম্বার ভবনে সভাপতি, ঊর্ধ্বতন সহ-সভাপতি এবং সহ-সভাপতি পদে নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। তবে সেখানেও কোন ধরণের নির্বাচন না হওয়ারই ইঙ্গিত রয়েছে। সর্বশেষ ২০১৬ সালে চেম্বারে সহযোগী সদস্য পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।
জানা যায়, চেম্বারের সভাপতি এবারও একমাত্র প্রার্থী হচ্ছেন ২০১০ সাল থেকে চেম্বারের সভাপতির দায়িত্বে থাকা কাজী আমিনুল হক। তিনি বর্তমান নগর আ’লীগের সহ-সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। পাশাপাশি খুলনা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র। ঊর্ধ্বতন সহ-সভাপতির ১টি পদে দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন ব্যবসায়ী শেখ আসাদুর রহমান। এছাড়া সহ-সভাপতি দু’টি পদের বিপরীতে এগিয়ে আছেন সোনাডাঙ্গা থানা আ’লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বিশ্বাস বুলু, সদ্য বিএনপি থেকে আ’লীগে যোগদান করা কাউন্সিলর শেখ মোঃ গাউসুল আজম, মহানগর আ’লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুল, ব্যবসায়ী মোঃ মোস্তফা জেসান ভুট্টোসহ কয়েকজন ব্যবসায়ীর নাম ব্যবসায়ীদের মুখে মুখে।
এদিকে পরপর দুইবার খুলনা চেম্বারে নির্বাচন না হওয়ায় সাধারণ ব্যবসায়ীদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। ফলে অনেক ব্যবসায়ী চেম্বারের সদস্য পদ নবায়ন করছেন না। ২০১৬ সালে ভোটার তালিকা অনুযায়ী চেম্বারের সাধারণ শ্রেণীর ভোটার ছিল ২৬০০, সহযোগীতে ১৪০০ এবং বাণিজ্যিক দলে ৫ জন নবায়ন করেছিল। চলতি বছরে ভোটার তালিকায় সাধারণ শ্রেণীতে ১৪৩০, সহযোগী শ্রেণীতে ৭০৮ এবং বাণিজ্যিক দলে ৫ জন নবায়ন করেন। এছাড়া চলতি বছরেই আ’লীগের নতুন মুখসহ প্রায় ৭ জন আ’লীগের পদধারী নেতারা ব্যবসায়ীদের নেতৃত্ব দিবেন। এর মধ্যে রয়েছেন নগর আ’লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জেড এ মাহমুদ ডন, জেলা আ’লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জোবায়ের আহমেদ খান (জবা), ২৩নং ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি চৌধুরী মিনহাজ-উজ-জামান, বঙ্গবন্ধু গবেষণা ফাউন্ডেশনের মহানগর নেতা এস এম ওবায়দুল্লাহ উল্লেখযোগ্য।
এ ব্যাপারে চেম্বারের বর্তমান সভাপতি কাজী আমিনুল হক এ প্রতিবেদককে বলেন, কোন সমঝোতা বা সিলেকশনের বিষয় নেই। ব্যবসায়ীদের জন্য সকল কিছুই উন্মুক্ত। খুলনার ব্যবসায়ীদের নেতৃত্ব দিতে যারা আগ্রহী তারাই পরিচালক পদে মনোনয়ন কিনেছিলেন। একাধিক প্রার্থী না থাকায় সকলেই নির্বাচিত হয়েছেন। আগামী ১৫ জুন ব্যবসায়ীরাই সিদ্ধান্ত নেবেন কে চেম্বারের সভাপতি, ঊর্ধ্বতন সহ-সভাপতি এবং সহ-সভাপতি হবেন।
চেম্বার সূত্রে জানা যায়, গত ১৮ মে নির্বাচনী তফশীল অনুযায়ী কোন পদে একাধিক প্রার্থী না হওয়ায় তিনটি শ্রেণীতে ২৪ জন পরিচালক বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। খুলনা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির নির্বাচন পরিচালনা বোর্ডের চেয়ারম্যান এড. আইয়ুব আলী শেখ, সদস্য শহিদুল আলম চৌধুরী এবং এড. এস এম আজমিরুল হামজা স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। সাধারণ সদস্য পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ১৫ জন পরিচালক হলেন শেখ আসাদুর রহমান, সিদ্দিকুর রহমান বিশ্বাস বুলু, এম এ মতিন পান্না, জেড এ মাহমুদ ডন, আলহাজ্ব মোঃ মোশাররফ হোসেন, মোঃ সিরাজুল হক, শেখ আল¬ামা ইকবাল তুহিন, মোঃ আবুল হাসান, আলহাজ্ব মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুল, জোবায়ের আহমেদ খান (জবা), কাজী মাসুদুল ইসলাম, এস এম ওবায়দুল¬াহ, দীপক কুমার দাস, মোঃ ইসলাম খান ও উজ্জ্বল কুমার গাঙ্গুলী।
সহযোগী সদস্য পদে নির্বাচিত ৬ জন পরিচালক হলেন মোঃ মোস্তফা জেসান ভূট্টো, শেখ মোঃ গাউসুল আজম, মোঃ মনিরুল ইসলাম মাসুম, খান সাইফুল ইসলাম, মোঃ মাহবুব আলম ও চৌধুরী মিনহাজ-উজ-জামান।
বাণিজ্যিক দল শ্রেণীতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ৩ জন পরিচালক হলেন কাজী আমিনুল হক, গোপী কিষণ মুন্ধড়া ও ঠাকুর মোঃ শাহ্ আলম।






Related News

Comments are Closed