Main Menu

খালিশপুর জুট মিলের জিএম মোস্তফা কামাল সাসপেন্ড

হলিবিডি প্রতিনিধিঃ
ঘুষ গ্রহণকালে দুদকের হাতে গ্রেফতারকৃত খালিশপুর জুট মিলের জিএম মোস্তফা কামালকে সাময়িক বহিষ্কার (সাসপেন্ড) করেছে বিজেএমসি। গতকাল তাকে বিজেএমসির মহাব্যবস্থাপক (প্রশাঃ ও সাঃ সেবা) মোঃ নাসিমুল ইসলাম সাক্ষরিত অফিস আদেশে তাকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

ওই আদেশ কপিতে উল্লেখ করা হয়েছে, দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) কর্তৃক ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে গত ৫ নভেম্বর খালিশপুর জুট মিলের জিএম মোস্তফা কামালকে গ্রেফতার করেছে। এ ব্যাপারে তার বিরুদ্ধে দুদক মামলা দায়ের করেছে এবং মোস্তফা কামাল কারাগারে রয়েছে। সেহেতু মোস্তফা কামালকে বিজেএমসি কর্মচারী প্রবিধানমালা ১৯৯০ এর ৪৫ (৪) ধারা অনুযায়ী গ্রেফতারের দিন থেকে তাকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো।

উল্লেখ্য, দশ হাজার টাকা ঘুষ গ্রহণের সময় খুলনার খালিশপুর জুট মিলের জিএম মোস্তফা কামালকে আটক করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গত ৫ নভেম্বর দুপুরে তাকে হাতেনাতে আটকেরপর দুদক কার্যালয়ে নিয়ে আসেন সংস্থাটির সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের একটি টিম।

দুদকের খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক নীলকমল পাল জানান, ওই জুট মিলের গার্ড কমান্ডার মোঃ নুরুল আমিন বাবু’র লিখিত অভিযোগের সূত্র ধরে অভিযান পরিচালনা করে দুদক। এ সময় ঘুষ গ্রহণের সময় হাতেনাতে তাকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়ের করা হয়। পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। তবে মিলের অসাধু পাট ব্যবসায়ীদের একটি চক্রের দৌঁড়ঝাঁপ ছিল লক্ষ্যণীয় বিষয়। গতকাল খালিশপুর মিল এলাকায় মোস্তফা কামাল ঘুষ গ্রহণকালে গ্রেফতারের বিষয়টি আলোচনায় ছিল সরব।

অভিযোগের সূত্রে জানা গেছে, মোঃ নুরুল আমিন বাবু ২০১৩ সালের ১ জানুয়ারি খালিশপুর জুট মিলের গার্ড হিসেবে যোগদান করেন। ২০১৯ সালের ৮ এপ্রিল জিএম মোস্তফা কামাল জুট মিলের মোঃ নুরুল আমিন বাবুসহ ৪ জন গার্ডকে পদোন্নতি দেন। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৮০ হাজার টাকা ঘুষ গ্রহণ করেন। পুনরায় আবারও ঘুষ চাইলে বিষয়টি তারা দুদকের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ করেন।






Related News

Comments are Closed