Main Menu

কবজি দিয়ে লিখেই জিপিএ-৪.২৫ পেলেন রকি

শিক্ষাঙ্গন ডেস্ক : দুই হাতের কবজি দিয়ে লিখেই এইচএসসি জয় করেছেন রাজশাহীর বাঘা উপজেলা মেহেদী হাসান রকি। গতকাল বুধবার ফলাফল প্রকাশের পর দেখা গেছে তিনি জিপিএ ৪.২৫ অর্জন করেছেন।

রকি রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী পৌরসভার গোচর গ্রামের আকছেদ আলীর ছেলে। তিনি এবার আড়ানী ডিগ্রি কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেন।

চলতি বছর আড়ানী আলহাজ্ব এরশাদ আলী ডিগ্রি মহিলা কলেজ কেন্দ্রের ৩০২ নম্বর কক্ষে এইচএসসি পরীক্ষা দেন রকি।

রকি প্রতিবন্ধী হয়েও জীবন থেমে নেই। তিনি শিক্ষা গ্রহণ করে প্রসাশনিক কর্মকর্তা হতে চান।

মেহেদী হাসান রকি জন্মগত প্রতিবন্ধী। কিন্তু তার বাবা-মায়ের প্রচেষ্টায় প্রতিবন্ধী হয়েও সে সব কাজ সফলভাবে শেষ করতে পেরেছে।

রকির দুটি হাত থাকলেও সাধারণ মানুষের চেয়ে অনেকাংশে ছোট এবং আঙ্গুলবিহীন। তার আঙ্গুলবিহীন ছোট হাত দ্বারা সব ধরনের কাজ করতে সক্ষম হয়।

রকি আড়ানী মনোমোহীনি সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ২০১৭ সালে এসএসসি পাশ করে আড়ানী ডিগ্রি কলেজে মানবিক বিভাগে ভর্তি হয়। সে দ্বিতীয় শ্রেণি থেকে একাদশ শ্রেণি পর্যন্ত ভাল ফল করে আসছে। রকি পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে জিপিএ-৫ পেয়েছিল।

এ বিষয়ে আড়ানী ডিগ্রি কলেজের উপাধ্যক্ষ শেখ সামসুদ্দিন বলেন, রকি প্রতিবন্ধী হলেও তার মেধা অন্যান্য ছাত্র-ছাত্রীদের চেয়ে অনেক বেশি। তার হাতের লেখাও ভাল। রকি লেখাপড়ার পাশাপাশি সব ধরনের খেলাধুলা, বাইসাইকেল চালানো ছাড়াও অন্যান্য কাজ নিজে করতে পারে তার পঙ্গু হাত দিয়ে।

মেহেদী হাসান রকি বলেন, আমি অতি দরিদ্র পরিবারের ছেলে। আমি চাই লেখাপড়া শিখে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে প্রশাসনিক কর্মকর্তা হয়ে পিতা মাতার দরিদ্র সংসারকে স্ব-নির্ভর করে গড়ে তুলব। আমি সকলের কাছে এই দোয়া কামনা করছি।

রকির পিতা আকছেদ আলী বলেন, আমার চার সদস্যের পরিবারের মধ্যে রকি বড় ছেলে। আমার পিতা আবদুল জলিল উদ্দিনের কাছে থেকে দুই বিঘা জমি পেয়েছি। এই জমিতে কাজ করে যা আয় হয়, তা দিয়ে কোনো রকম সংসার চলে। এ ছাড়া ছেলের লেখাপড়ার খরচ চালাতে কষ্ট হয়। এখন এইচএসসি পাশ করল। ভালো কলেজে ভর্তি করার মতো আমার সামর্থ নেই। কি করবো ভেবে পাচ্ছি না।






Related News

Comments are Closed