Main Menu

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

হলিবিডি ডেস্কঃ
ত্রিদেশীয় সিরিজে সোমবার লিগ পর্বের ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। এই জয়ের ফলে সিরিজের ফাইনালে উঠেছে টাইগাররা। আগামী ১৭ মে ফাইনাল ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে মাশরাফি বিন মর্তুজার দল। তবে, তার আগে ১৫ মে সিরিজের লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের লিগ পর্বের খেলা শেষ। এই পর্বে তারা বাংলাদেশের কাছে দুই ম্যাচে হারলেও স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডকে দুই ম্যাচে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে। ১০ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলে বাংলাদেশ এখন শীর্ষে রয়েছে। ৯ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে বিদায় নিশ্চিত হয়ে যাওয়া আয়ারল্যান্ড।

এদিন ডাবলিনের ম্যালাহাইডের দ্য ভিলেজে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দেয়া ২৪৮ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ৪৭.২ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৩ রান করেন মুশফিকুর রহিম। ওয়ানডেতে এটি তার ৩৩তম হাফ সেঞ্চুরি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫৪ রান করেন সৌম্য সরকার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের মধ্যে অ্যাশলে নার্স ৩টি, জ্যাসন হোল্ডার ১টি ও কেমার রোচ ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

ব্যাটিংয়ে নেমে তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকারের ব্যাটে দারুণ শুরু করে বাংলাদেশ। কিন্তু তামিম ইনিংস বড় করতে পারেননি। দলীয় ৫৪ রানে অ্যাশলে নার্সের বলে বোল্ড হন তিনি।

এরপর সৌম্যর সঙ্গে জুটি বাঁধেন সাকিব আল হাসান। দুজনে ভালো খেলছিলেন। কিন্তু সাকিব ব্যক্তিগত ২৯ রানে ফিরে যান। ২১তম ওভারে নার্সের বলে তিনি চেজের হাতে ক্যাচ হন। সাকিব ফিরে গেলে ওই ওভারেই ফিরেন সৌম্য সরকার। সৌম্য করেন ৫৪ রান। ওয়ানডেতে এটি তার নবম হাফ সেঞ্চুরি।

সৌম্য আউট হওয়ার পর ৮৭ রানের পার্টনারশিপ গড়েন মুশফিকুর রহিম ও মোহাম্মদ মিথুন। দলীয় ১৯০ রানে জ্যাসন হোল্ডারের বলে মিথুন বোল্ড হন। তিনি করেন ৪৩ রান। এরপর কেমার রোচের করা ইনিংসের ৪৭তম ওভারের প্রথম বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ড্যারেন ব্রাভোর হাতে ক্যাচ হন মুশফিক। ইনিংস শেষে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৩০ রান করে ও সাব্বির রহমান শূন্য রানে অপরাজিত থাকেন।

এদিন মাশরাফি বিন মর্তুজা ও মোস্তাফিজুর রহমানের দুর্দান্ত বোলিংয়ে স্কোর খুব বেশি বড় করতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ডাবলিনে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৪৭ রান সংগ্রহ করে ক্যারিবীয়রা।

লিগ পর্বে ওয়েস্ট ইন্ডিজের এটি ছিল শেষ ম্যাচ। সোমবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওপেনার শাই হোপ দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৭ রান করেন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬২ রান করেন জ্যাসন হোল্ডার। টাইগার পেসার মোস্তাফিজুর রহমান ৯ ওভারে ৪৩ রান দিয়ে ৪টি উইকেট শিকার করেছেন। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা ১০ ওভারে ৬০ রান দিয়ে নিয়েছেন ৩টি উইকেট। এছাড়া সাকিব আল হাসান ১টি ও মোস্তাফিজুর রহমান ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
ফল: ৫ উইকেটে জয়ী বাংলাদেশ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইনিংস: ২৪৭/৯ (৫০ ওভার)

(শাই হোপ ৮৭, সুনিল আমব্রিস ২৩, ড্যারেন ব্রাভো ৬, রস্টন চেজ ১৯, জনাথন কার্টার ৩, জ্যাসন হোল্ডার ৬২, ফ্যাবিয়ান অ্যালেন ৭, অ্যাশলে নার্স ১৪, রেমন রেইফার ৭, কেমার রোচ ৩*, শেল্ডন কটরেল ৮*; আবু জায়েদ রাহি ০/৫৬, মাশরাফি বিন মর্তুজা ৩/৬০, মেহেদী হাসান মিরাজ ১/৪১, মোস্তাফিজুর রহমান ৪/৪৩, সাকিব আল হাসান ১/২৭, সৌম্য সরকার ০/১৫)।

বাংলাদেশ ইনিংস:২৪৮/৫ (৪৭.২ ওভার)

(তামিম ইকবাল ২১, সৌম্য সরকার ৫৪, সাকিব আল হাসান ২৯, মুশফিকুর রহিম ৬৩, মোহাম্মদ মিথুন ৪৩, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৩০*, সাব্বির রহমান ০*; কেমার রোচ ১/৪৬, শেল্ডন কটরেল ০/৩৮, অ্যাশলে নার্স ৩/৫৩, রস্টন চেজ ০/২৪, ফ্যাবিয়ান অ্যালেন ০/১১, জ্যাসন হোল্ডার ১/৪৩, রেমন রেইফার ০/৩১)।

প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ: মোস্তাফিজুর রহমান (বাংলাদেশ)।






Related News

Comments are Closed