Main Menu

অফিস সহকারীর আলমারিতে ২৩ লাখ টাকা

অর্থবানিজ্য ডেস্ক : নওগাঁয় সঞ্চয় অফিসে গ্রাহকের প্রায় দুই কোটি ৬৩ লাখ টাকা আত্মসাতের ঘটনায় অফিসের উচ্চমান সহকারী হাসান আলীকে আটক করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ সময় অফিসে তার আলমারি থেকে ২২ লাখ ৮৭ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

বুধবার বিকাল ৫টার দিকে জেলা সঞ্চয় অফিস থেকে হাসান আলীকে আটক করা হয়। পরে নওগাঁ সদর থানায় সোপর্দ করা হলে পুলিশ তাকে জেলহাজতে পাঠায়। হাসান আলী নওগাঁ শহরের চকদেব সরিষাহাটি মোড়ের বাসিন্দা।

দুদক রাজশাহীর সহকারী পরিচালক আলমগীর হোসেন বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সকাল ১০টা থেকে আমরা অভিযান শুরু করি। এ সময় হাসান আলীর আলমারিতে টাকাগুলো পাওয়া যায়। আমাদের ধারণা, এটি আত্মসাৎ করা টাকার অংশ।

অভিযান চলাকালে কথা বলার জন্য ভুয়া ভাউচারের মাধ্যমে যারা প্রতারিত হয়েছেন তাদেরও অফিসে ডাকা হয়েছিল।

তবে নওগাঁ সঞ্চয় অধিদফতরের ভারপ্রাপ্ত সঞ্চয় কর্মকর্তা নাসির হোসেন বলেন, উচ্চমান সহকারী হাসান আলীর অর্থ আত্মসাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট থাকার বিষয়টি এখনও প্রমাণিত হয়নি। তার কিছু সঞ্চয়পত্র ছিল। তিনি পারিবারিক প্রয়োজনে সঞ্চয়পত্রগুলো ভেঙে টাকাগুলো আলমারিতে রেখেছিলেন। সেই টাকাসহ দুদক তাকে আটক করেছে।

এর আগে এ ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকায় জেলা সঞ্চয় অফিস সহায়ক সাদ্দাম হোসেনকে ২৫ জুন রাজশাহী মহানগর জিরো পয়েন্ট থেকে আটক করে দুদক। আটকের পর তাকে নওগাঁ সদর থানায় সোপর্দ করা হলে পুলিশ জেলহাজতে পাঠায়। অভিযুক্ত সাদ্দাম হোসেন গাইবান্ধা জেলা সদরের পশ্চিম কোমরনই গ্রামের বক্তার আলীর ছেলে। ২০১৪ সালে নওগাঁ সঞ্চয় অফিসে সাদ্দাম হোসেন অফিস সহায়ক পদে যোগদান করেন।

২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাস থেকে হঠাৎ করে অফিসে আসা বন্ধ করে দেন। দায়িত্ব পালনকালে সাদ্দাম বেশ কিছু আমানতের হিসাবের রেকর্ড না রেখে গ্রাহককে ভুয়া সিল-স্বাক্ষরে রশিদ দিয়েছেন। ভাউচার জালিয়াতির মাধ্যমে প্রায় দুই কোটি ৬৩ লাখ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায়, জুন মাসে সঞ্চয় অফিসে বিভাগীয় অফিস থেকে অডিট করা হয়। অডিটে বেশ কয়েকজন গ্রাহকের জমা টাকার গরমিল পাওয়া যায় এবং আমানত আত্মসাতের ঘটনা ধরা পড়ে। ঘটনা জানাজানির পর উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন বিনিয়োগকারীরা। ১৫ জুন নওগাঁ সদর থানায় অফিস সহায়ক সাদ্দাম হোসেনের বিরুদ্ধে সঞ্চয় অধিদফতরের ভারপ্রাপ্ত সঞ্চয় কর্মকর্তা নাসির হোসেন একটি মামলা করেন। এরপর ঘটনা অনুসন্ধানে নামে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।






Related News

Comments are Closed